অবশেষে নভেম্বরে মুক্তি পাচ্ছে ‘ডুব’

46

কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জীবনী অবলম্বনে ‘ডুব’ ছবিটি তৈরি হয়েছে কি হয়নি তা নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। বাংলাদেশের সেন্সরবোর্ডেও অনেকদিন আটকে ছিল ছবিটি। অবশেষে মঙ্গলবার এটি সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। তাই মুক্তিতে আর কোনো বাধা রইলো না। সংবাদটি মানবজমিনকে নিশ্চিত করেছেন সেন্সরবোর্ডের সদস্য ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। তিনি বলেন, ছবিটি মঙ্গলবার সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। এরপর এটি বাংলাদেশে মুক্তিতে আর কোনো বাধা রইলো না। ‘ডুব’ পরিচালনা করেছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। তিনি বলেন, আপনাদের মতো আমরাও জানতে পেরেছি ‘ডুব’-এর সেন্সর ছাড়পত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এটা খুশির সংবাদ। আশা করছি, দ্রুতই আমরা সার্টিফিকেট হাতে পাবো। এই দীর্ঘ অপেক্ষায় আপনাদের সমর্থন আমাদের স্পিরিট ঠিকঠাক রেখেছে। আপনাদের ধন্যবাদ। সেন্সর বোর্ডকে ধন্যবাদ। সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলকে ধন্যবাদ। এই খুশির খবরে, আজ বা কাল আপনাদের জন্য উপহার হিসেবে আসছে ‘ডুব’ ছবির একমাত্র গান চিরকুটের গাওয়া ‘আহা জীবন’-এর লিরিক ভিডিও। ছবিটি নভেম্বরে দর্শক প্রেক্ষাগৃহে দেখতে পাবেন। এদিকে, এরইমধ্যে ছবিটির দুই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের প্রথম পোস্টার প্রকাশ করেছে। পোস্টারে দেখা গেছে শিল্পীর তুলিতে আঁকা ছবির প্রধান অভিনেতা বলিউডের জনপ্রিয় মুখ ইরফান খানকে। ‘ডুব’ ছবিটি ভারত থেকে প্রযোজনা করেছে এসকে মুভিজ ও ইরফান খান। আর বাংলাদেশ থেকে জাজ মাল্টিমিডিয়া। ছবিটি আসছে ৩রা নভেম্বরে মুক্তি পাবে বলে জানিয়েছেন জাজের কর্ণধার আবদুল আজিজ। প্রযোজনা সূত্রে আরো জানা যায়, বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারত ও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মুক্তি পাবে ছবিটি। ‘ডুব’ ছবিটি এরই মধ্যে রাশিয়ার ৩৯তম মস্কো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রধান প্রতিযোগিতা বিভাগে লড়াইয়ের জন্য নির্বাচিত হয়। ‘ডুব’-এ অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের রোকেয়া প্রাচী, তিশা এবং ভারতের ইরফান খান ও পার্নো মিত্র প্রমুখ। প্রসঙ্গত, মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘ডুব’ ছবিটি বাংলাদেশের প্রয়াত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জীবনের কিছু বিতর্কিত অধ্যায়ের সঙ্গে মিলে যায়, এমন এক খবরের ভিত্তিতে তার স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন ছবিটির ব্যাপারে ঘোর আপত্তি জানিয়েছিলেন। এই আপত্তির কথা একটি চিঠির মাধ্যমে সেন্সর বোর্ডকেও জানান তিনি। কিন্তু পরিচালক ফারুকীর শুরু থেকেই বক্তব্য ছিল ছবিটির গল্প ও চরিত্র কাল্পনিক। অবশেষে সব বাধা কাটিয়ে ছবিটি নভেম্বরে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে।