আমি নিশ্চিত বাংলাদেশের আগামী নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে

33

ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, তিনি নিশ্চিত যে বাংলাদেশে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে। পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হকের সঙ্গে একান্ত বৈঠক শেষে তিনি এ আশা প্রকাশ করেন। গতকাল বিকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এ বৈঠক হয়। ভারতীয় হাইকমিশনারের কাছে সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল- বিদেশি বন্ধু ও উন্নয়ন সহযোগীরা বাংলাদেশের আগামী নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ দেখতে চায়। সেক্ষেত্রে ভারতের আকাঙ্ক্ষা কি? জবাবে তিনি বলেন, আমরা সবাই গণতান্ত্রিক পরিবেশে আছি। সেটা বাংলাদেশ হোক আর ভারত হোক। আমরা সবাই অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনে বিশ্বাসী। বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মও এটা আশা করে। তার কাছে আরো সুনির্দিষ্টভাবে জানতে চাওয়া হয়, ভারত বাংলাদেশে সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন দেখতে চায় কিনা? জবাবে তিনি বলেন, গণতন্ত্র মানেই অংশগ্রহণমূলক। আমি নিশ্চিত বাংলাদেশের আগামী নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে। এখানে সবাই অংশ নেবে। কেউ যদি এ প্রক্রিয়ায় না আসে সেটি তার বিষয়। পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে হাইকমিশনার বলেন, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে যৌথ পরামর্শ সভার পরবর্তী বৈঠক বাংলাদেশে হবে। মন্ত্রীপর্যায়ের ওই সভায় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নেতৃত্ব দিবেন। সভাটি আগামী কয়েক মাসের মধ্যে উভয়ের সুবিধাজনক সময়ে অনুষ্ঠিত হবে। এ প্রসঙ্গে শ্রিংলা বলেন, সচিবের সঙ্গে কোনো ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয় না। দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সব বিষয় সেখানে কমবেশি স্থান পায়। উন্নয়নের বিষয়টিও থাকে। বাংলাদেশে ভারতের ঋণে ৮ বিলিয়ন ডলারের প্রকল্প চলমান আছে। খুলনা-মংলা রেললাইন, শাহবাজপুর-কুলাউড়া রেললাইনসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। স্থলবন্দরগুলোর অগ্রগতি নিয়ে কথা হয়েছে। মোটা দাগে কানেক্টিভিটি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। যার মধ্যে বাংলাদেশ-ভুটান-ইন্ডিয়া-নেপাল (বিবিআইএন) চতুর্দেশীয় কানেক্টিভিটির অগ্রগতি নিয়েও আলোচনা হয়েছে। হাইকমিশনারের কাছে প্রশ্ন ছিল, ভুটান এর সঙ্গে থাকবে না বলে জানিয়েছে। তাহলে কী ভুটানকে বাদ দিয়ে আলোচনা হয়েছে? তিনি বলেন, এটি চতুর্দেশীয় ফোরাম। সেখানে চার দেশই অংশ নেয়ার কথা। যেহেতু একটি দেশ আসছে না। এ অবস্থায় বাকি দেশগুলো প্রক্রিয়া এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। যৌথ নদী কমিশন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কারিগরি কমিটি কয়েকদিন আগে বৈঠক করেছে। সেখানে অনেক বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। বৈঠক প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পররাষ্ট্রসচিব শহীদুল হক মানবজমিনকে বলেন, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ যৌথ পরামর্শ সভার বৈঠকে নেতৃত্ব দিতে বাংলাদেশে আসবেন। আগামী মাসে তার সফরটি হতে পারে।