আসর শেষ না হতেই পুরস্কৃত বাংলাদেশ

26

মাঠের পারফরমেন্সে মন ভরাতে না পারলেও আয়োজনে আবারও এশিয়ান হকি ফেডারেশনকে সন্তুষ্ট করেছে বাংলাদেশ। টুর্নামেন্ট শেষ হওয়ার আগেই সফল আয়োজনের সনদ পেয়ে গেছে বাংলাদেশ। সোমবার রাতে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের বিভিন্ন কর্মকর্তাদের মেরিট অব অ্যাওয়ার্ড দিয়েছে এশিয়ান হকি ফেডারেশনের কর্মকর্তারা। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের দু’জন কর্মকর্তাকে এশিয়ান হকি ফেডারেশনের (এএইচএফ) দু’টি সাব-কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এশিয়ান হকি ফেডারেশনের ইভেন্ট স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে এশিয়া কাপ হকির সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান শফিউল্লাহ আল মুনীরকে। এএইচএফ’র হাই পারফরম্যান্স কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন টুর্নামেন্টের সাংগঠনিক কমিটির সম্পাদক আ ন ম মামুন উর রশিদ।
এশিয়া কাপ হকির গ্রুপ পর্বের খেলা শেষ হয়েছে।

আজ শুরু হবে স্থান নির্ধারণী ম্যাচ। তার আগে সোমবার কুর্মিটোলা গল্‌ফ ক্লাবে অনুষ্ঠিত হয় এক নৈশভোজ। সেখানেই এএইচএফ’র সম্মানসূচক পুরস্কার মেরিট অফ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার চিফ মার্শাল আবু এসরার ও সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক। সার্টিফিকেট অফ রিকগনিশন সম্মাননা দেয়া হয় সহ-সভাপতি খাজা রহমতউল্লাহ, সভাপতির প্রতিনিধি উইং কমান্ডার রাফিউল হক এবং সাবেক খেলোয়াড় ও কোচ ফজলুল হককে (ফজলু ওস্তাদ)। সার্টিফিকেট অফ এপ্রিসিয়েশন পান এশিয়ান হকি ফেডারেশনের সদস্য ও বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি আবদুর রশিদ শিকদার। এসব সম্মাননা পদক তুলে দেন এএইচএফ’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) তৈয়ব ইকরাম। সনদ তুলে দিয়ে তিনি বলেন ‘এশিয়ান হকি ফেডারেশন অত্যন্ত সন্তুষ্ট বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের হিরো এশিয়া কাপ হকির সফল আয়োজনে। এএইচএফ সম্মানিত ব্যক্তিদের সম্মান দিতে পেরে কৃতজ্ঞ। এখন বলাই যাচ্ছে ঢাকা আন্তর্জাতিক হকি আয়োজনে সক্ষম। আগামীতে সামনে ঢাকায় আরো আন্তর্জাতিক আসর হতে পারে।’ বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার মার্শাল আবু এসরার বলেন, ‘আমি ঢাকাকে আন্তর্জাতিক হকির অন্যতম ভেন্যু হিসেবে দেখতে চাই। এজন্য এশিয়ান হকি ফেডারেশনের সর্বাত্মক সহযোগিতা পাবো বলে আশা করি। ’
বাংলাদেশের মামুন উর রশিদ এখন থেকে এএইচএফ’র হাই পারফরম্যান্স কমিটিতে সদস্য হিসেবে কাজ করবেন। ক’দিন পরেই ব্রুনাই ও ভিয়েতনামে কোচিং করাতে যাবেন তিনি। স্ট্র্যাটেজি ও ডেভেলপমেন্ট নামে এএইচএফ- নতুন কমিটি তৈরি করা হয়। যার চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়ন দেয়া হয় বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি শফিউল্লাহ আল মুনীরকে। এশিয়ান হকি ফেডারেশনের এই কমিটির দায়িত্ব হলো হকি খেলোয়াড়দের অবকাঠামোগত উন্নয়ন বিশেষ করে উন্নয়ন শীল দেশসমূহকে প্রধান ক্রীড়া বিষয়গুলো আয়োজনের সম্ভাব্য প্রাথমিক সহায়তা ও সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা। এএইচএফ‘র এমন দায়িত্ব পেয়ে উচ্ছ্বসিত মুনীর জানান,  নতুন এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণের জন্য আমি অত্যন্ত আনন্দিত। আমি বিশ্বাস করি সবাই এক ছাতার নিচে একসাথে এই কমিটির নির্ধারিত লক্ষ্য অর্জনে সফল হবো।