ইংল্যান্ড সেমিফাইনালে,আশা বাড়লো বাংলাদেশের

37

দুই জয়ে সবার আগে সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল গতবারের রানার্স আপ ইংল্যান্ড। আর ঝুলে রইলো নিউজিল্যান্ড। গতকাল ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফে বৃষ্টির বাধাহীন খেলায় নিউজিল্যান্ডকে ৮৭ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ডের ৩১০ রানের জবাবে নিউজিল্যান্ড ৪৪.৩ ওভারে ২২৩ রানে অলআউট হয়ে যায়। কিউইদের হারে সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনা আরো জোরালো হলো বাংলাদেশের। শুক্রবার বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড খেলায় জয়ী দল আশা করতে পারে টিকে থাকার। তবে তাদের অপেক্ষা করতে হবে পরের দিনের খেলার জন্য। শনিবার বার্মিংহামের এজবাস্টনে লড়বে দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ড আর অস্ট্রেলিয়া। সেই খেলায় অস্ট্রেলিয়া জিতলে দেশে ফিরতে হবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড দুই দলকেই। আর ইংল্যান্ড জিতলে ফিরতে হবে অস্ট্রেলিয়ার। সঙ্গে ফিরবে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড খেলার পরাজিত দল।  ইংল্যান্ডের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং নিউজিল্যান্ডকে বরাবরই আটকে রাখে। প্রথমে জেক বল, মাঝে আদিল রশিদ আর শেষে লিয়াম প্লাঙ্কেট নিউজিল্যান্ডের উইকেটগুলো তুলে নেন। ৫৫ রানে ৪ উইকেট নেন লিয়াম প্লাঙ্কেট। বল ৩১ রানে আর রশিদ ৪৭ রানে নেন ২ উইকেট। ইংল্যান্ড অধিনায়ক মোটে পাঁচ জন বোলারকে ব্যবহার করেন। উইকেটও পান সবাই। তবে রনকি আর টেইলরের উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন জেক বল। বাংলাদেশের বিপক্ষেও প্লাঙ্কেট ৪ উইকেট নেন ৫৯  রানে। ৫৫ ম্যাচের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এ নিয়ে এক ম্যাচে তিনবার চার উইকেট পেলেন ইয়র্কশায়ারের ৩২ বছর বয়সী এ বোলার যার উচ্চতা  ৬ ফুট ৩ ইঞ্চি। দুই খেলায় আট উইকেট নিয়ে তিনিই এখন সবার উপরে। আর ৭ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে রয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার হ্যাজেলউড।
শুরুর দিকে জয়ের পাল্লা নিউজিল্যান্ডের দিকে ঝুঁকে আছে বলে মনে হচ্ছিল। ২৫ ওভার শেষে তাদের সংগ্রহ ছিল ২ উইকেটে ১৩৪। ঠিক এসময়ে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ১৩৫। তারা হারিয়েছিল তিন উইকেট। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও রস টেইলর বেশ দেখে শুনে এগিয়ে নিচ্ছিলেন দলকে।
৬৩ রানে দুই উইকেট পতনের পর জুটি বাঁধেন তারা। এর আগে প্রথম ওভারে লুক রনকিকে হারানোর পর ধীরে তবে দৃঢ়তার সঙ্গেই এগুচ্ছিল নিউজিল্যান্ড। অপর ওপেনার গাপটিল আউট হন ৩৩ বলে ২৭ রান করে।
উইলিয়ামসন ও রস টেইলরের বিদায়ের পর যেন হালে পানি পায় ইংল্যান্ড। ৯৮ বলে ৮৭ রান করা  উইলিয়ামসনকে আউট করেন মার্ক উড। আটটি চার ছিল তার ৩০তম ফিফটির ইনিংসে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঠিক ১০০ রান করেছিলেন তিনি। ১৫৮ রানে উইলি ফেরার ১০ রান পর ফেরেন টেইলর। ৫৯ বলে ৩৯ রান কর টেইলর আউট হন বলের বলে। কিউইরা চাপে পড়ে যায় তখনই। ৩৫ ওভার শেষে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ১৭৮/৪। ১৫ ওভারে তাদের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৩৩ রান। তবুও অনেকে আশা দেখছিলেন নিশাম ও নেইল ব্রুম ক্রিজে থাকায়। কিন্তু পরপর দুই ওভারে নিশাম ও ব্রুম আউট হলে নিউজিল্যান্ডের জয়ের সম্ভাবনা শেষ হয়ে যায় অনেকাংশে। এরপরে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি তারা।
প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩০৮ রান করেছিল ইংল্যান্ড। অনেকেই ভেবেছিল বাংলাদেশ দল দুর্বল বলে তারা এটা পেরেছে। কিন্তু গতকাল শক্তিশালী নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও তারা ৩ শতাধিক রান করলো। কোন ব্যাটসম্যান আহামরি বড় কোন ইনিংস খেলতে পারেনি। আবার অলআউটও হয়ে গেছে ৩ বল বাকি থাকতে। গতবারের (২০১৩) রানার্স আপ ইংল্যান্ড এবারো কেন টপ ফেভারিট তার স্বাক্ষর তারা রেখে চলেছে। ওপেনার জেসন রয় ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে না পারলেও ব্যাটিং ফর্মের ধারাবাহিকতা দেখান টেস্ট অধিনায়ক জো রুট। বাংলাদেশের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করা এ ব্যাটসম্যান গতকাল আউট হন ৬৪ রান করে। ৬৫ বলের ইনিংসে ২টি ছক্কা আর চারটি চার মারেন তিনি। ২০১৬ সালের পর থেকে এ পর্যন্ত ওয়ানডেতে রুটের গড় প্রায় ৭০ রান। ওপেনার জেসন রয় খ আউট হন ২৩ বলে ১৩ রান করে। এরপরে হেলস ও রুট দলের রান ৩৭ থেকে ১১৮ পর্যন্ত নিয়ে যান। ২৫ ওভার শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল কেবল ৩ উইকেটে ১৩৫ রান। তারপরেও ইংল্যান্ড রান ৩১০ হয় অ্যালেক্স হেলস, বেন স্টোকস আর জস বাটলারের নৈপুণ্যে। ৬২ বলে ৫৬ রান করেন হেলস যাতে ২ ছক্কা আর ৩ চার ছিল। বেন স্টোকস ২ রানের জন্য ফিফটি করতে ব্যর্থ হন। ৫৩ বলের ইনিংসে তিনিও ২ ছক্কা আর ৪ চার মারেন। শেষ দিকে জস বাটলার ৪৮ বলে ৬১ রান করে অপরাজিত থাকেন। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ৩ উইকেট করে নেন অ্যাডাম মিলনে ও কোরি অ্যান্ডারসন। ২টি নেন টিম সাউদি। নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশকে হারায় ইংল্যান্ড। আর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়।