‘ইত্যাদি’ এবার পাবনার হার্ডিঞ্জ ব্রিজের সামনে

37

বরাবরই ইতিহাস, ঐতিহ্য, সভ্যতা, সংস্কৃতি, পর্যটন ও দর্শনীয় স্থানগুলোতে গিয়ে ধারণ করা হয় জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’। সে ধারাবাহিকতায় এবারের পর্ব ধারণ করা হয়েছে পাবনা জেলার ঈশ্বরদীর পাকশীস্থ আমাদের দেশের শতাব্দী পেরিয়ে আসা একমাত্র ইস্পাত নির্মিত সর্ববৃহৎ রেল সেতু ঐতিহ্যবাহী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ পয়েন্টে। অনুষ্ঠানটির আগামী পর্ব একযোগে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে প্রচার হবে ২৯শে সেপ্টেম্বর রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর। শেকড় সন্ধানী ইত্যাদির এবারের পর্বে রয়েছে পাবনার ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের উপর একটি তথ্যসমৃদ্ধ প্রতিবেদন। যার জন্ম, বেড়ে ওঠা, পড়াশোনা সবকিছুই এই পাবনাতেই। পাবনার বেড়া উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামের নিবেদিতপ্রাণ কৃষিকর্মী বাদশা মোল্লার উপর রয়েছে একটি অনুকরণীয় প্রতিবেদন। প্রচার সর্বস্বতার এই যুগেও প্রচারবিমুখ কৃষি অন্তপ্রাণ বাদশা তার সীমিত সামর্থ্য নিয়ে বিনামূল্যে গ্রামের প্রতিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিজ হাতে বিতরণ করছেন বীজ আর সহায়তা করছেন বপনে। তার সেই বীজ থেকে বিভিন্ন শাকসবজিতে ভরে উঠছে গ্রামের বিভিন্ন বাড়ির আঙ্গিনা। রয়েছে ঐতিহ্যবাহী পাবনা মানসিক হাসপাতালের উপর একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন। এছাড়াও রয়েছে বিদেশি প্রতিবেদন। এবারের ইত্যাদিতে মূল গান রয়েছে দু’টি। একটি গান গেয়েছেন পাবনারই কৃতী সন্তান বাপ্পা মজুমদার ও তার দলছুট দল। পাবনারই আরেক কৃতী শিল্পী স্বনামধন্য অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী মা, বোন, বন্ধু ও ভালোবাসার মানুষদের আবেগময় সম্পর্কের অনুভূতি নিয়ে একটি গান গেয়েছেন। এবারের দর্শক পর্বে পাবনাকে ঘিরে প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে হাজার হাজার দর্শকের মাঝখান থেকে ৬ জন দর্শক নির্বাচন করা হয়। নির্বাচিত দর্শকদের সঙ্গে ২য় পর্বে অংশ নিয়েছেন পাবনারই আরো দু’জন কৃতী শিল্পী-নাট্যদম্পতি বৃন্দাবন দাস ও শাহনাজ খুশী। নিয়মিত পর্বসহ এবারও রয়েছে বিভিন্ন সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে বেশ কিছু সরস অথচ তীক্ষè নাট্যাংশ। স্বদেশি বিয়েতে ভিনদেশি সিরিয়ালের প্রভাব, বিয়েবাড়ির ব্যতিক্রমী আয়োজন, বন্ধুত্বে কালোতালিকা, ভেজালের জাল, অবান্তর সন্দেহ, ভাসমান ভাষার ব্যবসাসহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর রয়েছে বেশ কয়েকটি নাট্যাংশ। বরাবরের মতো এবারও ইত্যাদির শিল্প নির্দেশনা ও মঞ্চ পরিকল্পনায় ছিলেন অনুষ্ঠানের নিয়মিত শিল্প নির্দেশক মুকিমুল আনোয়ার মুকিম। এবারের ইত্যাদিতে উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা হলেন সোলায়মান খোকা, আব্দুল আজিজ, মহিউদ্দিন বাহার, আফজাল শরীফ, আবদুল কাদের, জিয়াউল হাসান কিসলু, শবনম পারভীন, সুভাশিষ ভৌমিক, কামাল বায়েজিদ, জিল্লুর রহমান, কাজী আসাদ, শেলী আহসান, আমিন আজাদ, তারেক স্বপন, মুকুল সিরাজ, জামিল, শাহেদ আলী, নিপু, মনজুর আলম, জ্যোস্নে আরা, সাজ্জাদ সাজু, বাহার, ফাহিম, নিসা, সজল, মতিউর রহমান, আনোয়ার শাহী, ফরিদ, বিলু বড়–য়া, হাশিম মাসুদ, নজরুল ইসলামসহ আরো অনেকে। পরিচালকের সহকারি হিসাবে ছিলেন যথারীতি রানা ও মামুন। ইত্যাদি’র রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন। অনুষ্ঠানটি স্পন্সর করেছে যথারীতি কেয়া কস্মেটিকস্ লিমিটেড।