একজনের ‘গহীন বালুচর’ অন্যজনের ‘ভয়ংকর সুন্দর’

37

একজন রুনা খান ও অন্যজন ভাবনা। বিজ্ঞাপন এবং অভিনয়ে রুনা খানের সরব উপস্থিতি সবসময়ই চোখে পড়ে। আর ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই টিভি নাটকে ভাবনার অনবদ্য অভিনয় খুব অল্প সময়েই তাকে নিয়ে এসেছে আলোচনায়। দু’জনের মধ্যে রুনা খান অনেক আগেই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। তবে এবারই প্রথম অভিনয় করেছেন চলচ্চিত্রে ভাবনা। দু’জন একসঙ্গে বেশকিছু নাটকে অভিনয় করেছেন। তবে চলচ্চিত্রে তাদের একসঙ্গে অভিনয় করা হয়ে উঠেনি। মিডিয়ায় পথ চলতে গিয়ে তাদের মধ্যে চমৎকার সম্পর্কও তৈরি হয়েছে। রুনা খান এবং ভাবনার আলাদা দু’টি চলচ্চিত্র মুক্তি পাচ্ছে। রুনা অভিনীত বদরুল আনাম সৌদ পরিচালিত ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রটি এরইমধ্যে সেন্সর সার্টিফিকেট লাভ করেছে। মুক্তির তারিখ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। অন্যদিকে ভাবনা অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র অনিমেষ আইচ পরিচালিত ‘ভয়ংকর সুন্দর’ চলচ্চিত্রটি আগামী ৪ঠা আগস্ট মুক্তি পাবে। ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রে রুনা খান অভিনয় করেছেন জিতু আহসানের স্ত্রী শামীমা চরিত্রে। অন্যদিকে ভাবনা ‘ভয়ংকর সুন্দর’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন নয়নতারা চরিত্রে। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ওপার বাংলার পরমব্রত। ভাবনার চলচ্চিত্র মুক্তির শুভকামনা জানিয়ে তারা সম্পর্কে রুনা খান বলেন, ভাবনা এককথায় একজন অসাধারণ অভিনেত্রী। ‘কপালকুণ্ডুলা’, ‘মায়াবতী’ টেলিফিল্মে তার অভিনয় দেখে আমি রীতিমতো বিস্মিত হয়েছি। এতো চমৎকার অভিনয় করেছে যে আমি মুগ্ধ হয়ে তাকিয়ে ছিলাম। ভাবনা এমনই একজন অভিনেত্রী যে পর্দায় নিজেকে গ্ল্যামারাসভাবে উপস্থাপনের চেয়ে চরিত্র যথাযথ হচ্ছে কি না সেদিকেই মনোযোগ দেয় বেশি। যে কারণে তার অভিনয়ও হয় দুর্দান্ত। ‘ভয়ংকর সুন্দর’ চলচ্চিত্রেও সেই অনবদ্য ভাবনাকে দেখার অপেক্ষায় আছি। ভাবনা এবং ‘ভয়ংকর সুন্দর’-এর জন্য শুভকামনা। রুনা খান প্রসঙ্গে ভাবনা বলেন, নিংসন্দেহে রুনা আপু একজন গুণী অভিনেত্রী। তার অভিনয়ে সবসময়ই আমি মুগ্ধ হই। অভিনয়ে তার পরামর্শও আমি সাদরে গ্রহণ করি। চরিত্রে খুব সহজে মিশে গিয়ে নিজের মতো করেই অনবদ্য অভিনয় করেন তিনি। ‘গহীন বালুচর’ ছবিতে রুনা আপুর অভিনয় দেখার অপেক্ষায় আছি। রুনা খান ও ভাবনা প্রথম একসঙ্গে অভিনয় করেন ‘গুলশান এভিনিউ’ ধারাবাহিক নাটকে। এরপর তারা দু’জন সালাহ উদ্দিন লাভলুর নির্দেশনায় ‘জামাই আদর’ নাটকে অভিনয় করেন।