এতিম রোহিঙ্গা শিশুদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করা হচ্ছে

28

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে এতিম শিশুদের আলাদা করে রাখার ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ। মঙ্গলবার সচিবালয়ের মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এতিম রোহিঙ্গা শিশুদের আলাদা রাখতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও পরামর্শ দিয়েছেন। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ও শিশুদের অধিকার রক্ষায় এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
তবে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে যাদের বাবা-মা আছে তাদের কী হবে-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটি আমাদের এখতিয়ারের মধ্যে দেয়া হয়নি। সেটা হয়তো অন্য কোনো মন্ত্রণালয়কে দায়িত্ব দেওয়া হবে।
নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, দুই ধরনের এতিম রোহিঙ্গা শিশু শনাক্ত করা হবে। যেসব শিশুর বাবা-মা নেই কিন্তু তারা আত্মীয় স্বজনের সঙ্গে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে এবং যাদের বাবা-মা বা আত্মীয় স্বজন কেউ নেই। মূলত অন্য রোহিঙ্গাদের সঙ্গে জীবন বাঁচানোর তাগিদে এদেশে আশ্রয় নিয়েছে।
তিনি আরও বলেন, মোট ৪/৫ হাজার এতিম রোহিঙ্গা শিশু আশ্রয় নিয়ে থাকতে পারে। টেকনাফ ও উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের সাময়িকভাবে থাকার জন্য যে দুই হাজার একর জমি দেয়া হয়েছে সেখানে দুইশ একর করে মোট চারশ একর জমি চাওয়া হয়েছ। প্রক্রিয়া শেষ হলে এতিম রোহিঙ্গা শিশুদের শনাক্ত করে সঙ্গে সঙ্গে স্মার্ট কার্ড দেওয়া হবে। এছাড়া ছবিসহ একটি ডাটাবেজও তৈরি করা হবে।
সমাজকল্যান প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে প্রায় দুইশ এতিম রোহিঙ্গা শিশুর ডাটাবেজ তৈরি করা হয়ে গেছে। সমাজসেবা অধিদফতরের ১২০ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে এ কাজে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তারা কাজ করছেন।
তিনি আরও বলেন, এসব এতিম শিশুদের খাবারের ব্যবস্থা করবে ইউনিসেফ। তবে সমন্বয় করবে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়। তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গা এতিম শিশুদের গুগল ফর্মের মাধ্যমে প্রচারের ব্যবস্থা করা হবে।
[এমকে]

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা