এবার বেলকে নিয়ে নতুন গুঞ্জন

30

ইউরোপিয়ান ফুটবলে প্রতিটি দলবদলের মৌসুমে নাটক জমে ওঠে। কোন খেলোয়াড় কোন ক্লাব ছাড়ছেন, কোন ক্লাবে যোগ দিচ্ছেন তা নিয়ে থাকে নানা গুজব। কোনো কোনো গুজব শেষ পর্যন্ত সত্যি হয়ে যায়। আর কোনোটা গুজব হয়েই থেকে যায়। দল বদলের চলতি মৌসুমে সবচেয়ে বেশি আলোচনার খোরাক যোগাচ্ছে দু’টি ক্লাব। স্পেনের রিয়াল মাদ্রিদ ও ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এই তালিকায় স্পেনের বার্সেলোনা ও ফ্রান্সের প্যারিস সেইন্ট জার্মেই’র নামও যোগ করা যায়। দলবদলের মৌসুম শুরুর পর থেকে একজন জাত স্ট্রাইকারের খোঁজে হন্যে হয়ে ফিরছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। কারণ, গত মৌসুমের শেষদিকে ইনজুরিতে পড়েন স্ট্রাইকার জ্লাতান ইবরাহিমোভিচ। এত তার সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেনি ম্যানইউ। ছেড়ে দেয় তাদের দীর্ঘদিনের ভরসা ওয়েইন রুনিকে। এতে নতুন মৌসুমে তাদের একজন জাত স্ট্রাইকার আবশ্যক হয়ে ওঠে।
শুরুতেই গুজব ওঠে, রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে দেবেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। স্পেনে তার বিরুদ্ধে কর ফাঁকির মামলা হওয়ায় রাগে-ক্ষোভে রিয়াল মাদ্রিদই ছেড়ে দিতে চান তিনি। অনেকে তার ভবিষ্যৎ দেখছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। ইংল্যান্ডের ক্লাবটি রোনালদোর ব্যাপারে আশাবাদী হয়ে ওঠে। কিন্তু কিছুদিন পর বুঝা যায়, রোনালদো রিয়াল ছাড়বেন না। এবার ম্যানইউ’র কোচ হোসে মরিনহোর চোখ যায় রিয়ালের আরেক স্ট্রাইকারের দিকে। আলভারো মোরাতাকে রিয়াল মাদ্রিদ বিক্রি করে দেবে শুরু থেকেই জানা যাচ্ছিল। তাকে দলে ভেড়ানোর জন্য চেষ্টা শুরু করেন হোসে মরিনহো। ওই আলোচনা চলার মাঝে হুট করে এভারটন থেকে রোমেরু লুকাকুকে দলে ভেড়ায় ম্যানইউ। এতে মোরাতা বেঁকে বসেন। তিনি এবার ম্যানসিটিতে যোগ দিতে আগ্রহ দেখান। শেষ পর্যন্ত সেখানে যাননি তিনি। ইংল্যান্ডেরই আরেক ক্লাব চেলসিতে যোগ দেন মোরাতা।
রোনালদো ও মোরাতা পর্ব শেষ হওয়ার পর শুরু হয় নেইমারকে নিয়ে বার্সেলোনা ও পিএসজি’র মধ্যকার নাটকীয়তা। সেটা এখনো চলছে। নেইমারকে দলে ভেড়ানোর জন্য পিএসজি ২২২ মিলিয়ন পাউন্ড প্রস্তুত করেছে বলে শোনা যাচ্ছে। ব্রাজিলের এ স্ট্রাইকারের ভবিষ্যৎ নিয়ে এখন অনেকটা ধোঁয়াশা।
নেইমারকে নিয়ে আলোচনা শেষ না হতেই দৃশ্যপটে এবার গ্যারেথ বেল। রিয়াল মাদ্রিদ নাকি তাকে ছেড়ে দেবে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটের এবার নাকি আগ্রহী হয়ে উঠেছে বেলের প্রতি। একাধিক বৃটিশ মিডিয়া এমনটাই জানাচ্ছে। এই খবরের পেছনে অন্য একটি ঘটনা রয়েছে। সেটা হলো, ফরাসি ক্লাব মোনাকোর স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপেকে নিয়ে। তরুণ এ স্ট্রাইকারের প্রতি প্রবল আগ্রহ দেখাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ। তারা নাকি এমবাপের জন্য মোনাকোকে ১৬০ মিলিয়ন পাউন্ড দেবে। অন্যদিকে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটিও এমবাপের প্রতি আগ্রহ দেখাচ্ছে। রিয়ালকে টপকে তারা দিতে চায় ১৮০ মিলিয়ন পাউন্ড।
তবে এমবাপে নিজে রিয়ালে যেতে আগ্রহী বলে জানা গেছে। শেষ পর্যন্ত এমবাপের রেকর্ড গড়ে রিয়ালে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। আর এমনটা হলে গ্যারেথ বেল নাকি রিয়ালে থাকবেন না। কারণ রিয়ালের আক্রমণভাগে এমনিতেই এখন আছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, করিম বেনজেমা, গ্যারেথ বেল ও ইসকো। এখন যদি এমবাপে যোগ দেন তাহলে আক্রমণভাগে শুরু হবে প্রবল লড়াই। আর এমবাপের প্রধান লড়াইটা হতে পারে গ্যারেথ বেলের সঙ্গে। এমন লড়াইয়ে যেতে চান না ওয়েলসের এ তারকা খেলোয়াড়। তাই এমবাপেকে রিয়াল দলে ভেড়ালে বেল ক্লাব ছেড়ে দেবেন বলে জানাচ্ছে বৃটিশ মিডিয়া।
রিয়ালের কোচ জিনেদিনে জিদানও এমন একটি সম্ভাবনার ইঙ্গিত দিলেন। যুক্তরাষ্ট্রে চলমান ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপে খেলছে রিয়াল মাদ্রিদ। সর্বশেষ ম্যাচে তারা ৪-১ গোলে উড়ে গেছে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে। অমন লজ্জাজনক হারের পর সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন জিদান। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি তার আক্রমণভাগ নিয়ে বলেন, ‘আশা করি, এই মৌসুমে বিবিসি (বেল, বেনজেমা, ক্রিস্টিয়ানো) থেকে যাবে। প্রত্যেকেই থেকে যাবে বলে আশা। আমি আশা করি, এখানে যারা আছে সবাই সামনের মৌসুমে থেকে যাবে। তবে ৩১ আগস্টের (বদল বদলের শেষ দিন) আগে যে কোনো কিছু ঘটে যেতে পারে।’
জিদানের মন্তব্যের শেষ বাক্যটাকে অন্যভাবে দেখছেন অনেকে। তিন ফরোয়ার্ডের যে কোনো একজনের বিক্রি করে দেয়ার ইঙ্গিত পাচ্ছেন তারা। আরেকটি ঘটনায় গ্যারেথ বেলেন রিয়াল ছেড়ে ম্যানইউতে যোগ দেয়ার ইঙ্গিত পাওয়া যায়। ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপ চলাকালে সান্টা কার্লায় ম্যানইউর কোচ হোসে মরিনহোর সঙ্গে দেখা হয় গ্যারেথ বেলের।
সেখানে বেলের সঙ্গে মজা করে মরিনহো বলেন, ‘তোমাকে আমি কিনবো না। কারণ, তুমি তো আমার সঙ্গে কথাই বলো না।’ মরিনহোর এই দুষ্টুমির মধ্যেও ইঙ্গিত খুঁজে পাচ্ছেন অনেকে। এছাড়া বৃটিশ মিডিয়া মরিনহো ও বেলের বেশ কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে। তাকে বেলের সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলতে ও দুষ্টুমি করতে দেখা গেছে। সবকিছু মিলিয়ে ‘ডেইলি মেইল’, ‘মিরর’ ও ‘দ্য সান’ মনে করছে- রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে গ্যারেথ বেল যোগ দেবেন হোসে মরিনহোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে।