‘কাজের বাইরে অন্য কোন সম্পর্ক আমাদের মধ্যে নেই’

28

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর দেশব্যাপী প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে আমার অভিনীত ছবি ‘ভয়ঙ্কর সুন্দর’। শুধু সিনেমাই নয়, এটি আমার জীবনেরই অংশ। ছবির মুক্তির আগের দিন উচ্ছ্বাসের সঙ্গে ঠিক এমনভাবে মানবজমিনকে খুশির খবর জানাচ্ছিলেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা। ‘ভয়ংকর সুন্দর’-এর মধ্য দিয়ে সূচনা হচ্ছে তার বড় পর্দার পথচলা। এ সময়ের ব্যস্ততা কি নিয়ে জানতে চাইলে ভাবনা বলেন, এখন আমি ব্যস্ত আছি নয়নতারাকে নিয়ে। ‘ভয়ংকর সুন্দর’ ছবিতে আমার চরিত্রে নাম নয়নতারা। আমি এখন টেলিভিশন, রেডিও অনুষ্ঠান, ফেসবুক এবং বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ছবির প্রচাারণায় নিয়মিত অংশ নিচ্ছি। কোরবানির ঈদের আগ পর্যন্ত আমি অন্য কিছু ভাবতেই পারছিনা। ‘ভয়ংকর সুন্দর’ ছবি নিয়ে পরিকল্পনা বিষয়ে প্র শ্ন করা হলে তিনি বলেন, ছবিটির প্রিমিয়ার শো হচ্ছে আজ। সে সঙ্গে আজ আমার জন্মদিন। প্রিমিয়ার শো হওয়ার কথা ছিলো না। আমার জন্মদিনকে কেন্দ্র করে বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্সে সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে আয়োজন করা হয়েছে আমার অভিনীত ‘ভয়ংকর সুন্দর’ ছবির প্রিমিয়ার শো। আর এটিই আমার জীবনের সেরা উপহার। সারাদেশের মাত্র ২৮টি সিনেমা হলে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘ভয়ংকর সুন্দর’। এত কম সংখ্যক প্রেক্ষাগৃহে কেন? উত্তরে ভাবনা অনিমেষ আইচের বরাত দিয়ে বলেন, আমরা ১৫০ সিনেমা হল কর্তৃপক্ষ থেকে চিঠি পেয়েছি। তার মধ্যে বেছে বেছে ২৮টিকে ছবিটি দেয়া হয়েছে। আমরা দেখতে চাই ২৮ টি হল থেকে রেসúন্স কেমন পাই। আপনারা হলে গিয়ে দর্শকের সঙ্গে ছবিটি দেখবেন? ভাবনা বলেন, আমি এবং আমার পুরো টিম ছবিটি হলে গিয়ে দেখবো। বিশেষ করে মধুমিতা, বলাকা, শ্যামলী, ব্লকবাস্টার সিনেমাস(যমুনা ফিউচার পার্ক) ও স্টার সিনেপ্লেক্স (বসুন্ধরা সিটি) হলে আমারা ছবিটি দেখবো বলে পরিকল্পনা করে রেখেছি। ‘ভয়ংকর সুন্দর’ ছবিতে আপনার বিপরীতে অভিনয় করেছেন পরমব্রত। তার সম্পর্কে কিছু বলুন। ভাবনা বলেন, অসাধারণ একজন মানুষ পরমব্রত। তিনি আমার সহশিল্পি বলে নয়, তার অভিনয় ও ব্যাবহার সব কিছুতে সত্যিই আমি মুগ্ধ। এখন ছবির প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত ভাবনা। তাই আগামী ঈদে আর কোনো কাজ করছেন না বলে জানান তিনি। নির্মাতা অনিমেষ আইচের সঙ্গে ভাবনার সম্পর্ক নিয়ে নান কানাঘুষা শোনা যায়। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ভাবনা বলেন, আমি খুব বেছে বেছে কাজ করি। অনিমেষ আমার খুব ভালো বন্ধু। তার নাটকের গল্প আর পরিচালনা অনেক ভালো। তাই তার সঙ্গে আমার অনেক কাজ করা হয়। কাজের বাইরে অন্য কোন সম্পর্ক আমাদের মধ্যে নেই। উল্লেখ্য, শৈশব থেকেই সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সঙ্গে পরিচয় ভাবনার। তার বাবা একজন মঞ্চ অভিনেতা ও নির্মাতা। সে সুবাদে ছোটবেলায় ক্যামেরার সঙ্গে সখ্য গড়ে ওঠে এ অভিনেত্রীর। মাত্র দুই বছর বয়সেই ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন। তবে ২০০৮ সালে মূল অভিনেত্রী হিসেবে শোবিজ অঙ্গনে তার অভিষেক ঘটে। ভাবনা অভিনীত প্রথম নাটক ‘নট আউট’। এ নাটকে তিনি নিজেকে একজন দক্ষ অভিনেত্রী হিসেবে প্রমাণ দিয়েছেন। এরপর মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘ফার্স্ট ডেট’ নাটকে অভিনয় করেন। নাটকটি প্রচারের পরই বেশ আলোচিত হয়ে ওঠেন তিনি। অল্প দিনেই এই লাস্যময়ী অভিনেত্রী তার অভিনয়ের কারিশমা দিয়ে দর্শক-নির্মাতাদের নজরে আসতে সক্ষম হন।