গ্রাহকের মৃত্যুর পর টাকা পাবে নমিনিই

32

ব্যাংকে টাকা রেখে কোনো গ্রাহকের মৃত্যু হলে তার নমিনি ছাড়া অন্য কারও কাছে টাকা দেয়া যাবে না বলে ফের জানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। অর্থাৎ আমানতকারীর মৃত্যুর পর টাকা পাবে নমিনিই। বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রজ্ঞাপনে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এর আগে গত এপ্রিলে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সেখানে বলা হয়েছিল, সম্প্রতি কিছু কিছু ব্যাংক আমানতকারীদের মনোনীত নমিনির কাছ থেকে অঙ্গীকারনামা নিয়েছে যে, আমানতকারীর মৃত্যুর পর তাঁদের মনোনীত নমিনি মৃত ব্যক্তির হিসাবে রক্ষিত আমানত প্রাপ্তির জন্য যোগ্য বা উপযুক্ত হিসেবে বিবেচিত না-ও হতে পারেন। কিন্তু এই অঙ্গীকারনামা ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ (২০১৩ সাল পর্যন্ত সংশোধিত)-এর ১০৩ ধারায় নির্দেশনার পরিপন্থী। এ অবস্থায় ব্যাংকগুলোকে ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুসরণের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
গত বছরের ৩রা এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ একটি মামলার রায়ে মৃত ব্যক্তির ব্যাংকে রেখে যাওয়া টাকা উত্তরাধিকারের ভিত্তিতে বণ্টনের নির্দেশ দেন। রায়ে বলা হয়, আমানতের অর্থ নমিনি নয়, আইনসঙ্গত উত্তরাধিকারীরা পাবেন। নমিনি সংশ্লিষ্ট ব্যাংক হিসাবের হেফাজতকারী মাত্র।
আদালতের ওই রায়ের পর অনেক ব্যাংক নতুন হিসাব খোলার সময় নমিনিকে টাকা না-ও দেয়া হতে পারে-এই মর্মে অঙ্গীকারনামা নেয়া শুরু করে। সৃষ্ট জটিলতার প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিপত্রে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়, কোনো ব্যক্তি মারা গেলে ব্যাংকে রেখে যাওয়া টাকা তার নমিনি (মনোনীত ব্যক্তি) পাবেন। ব্যাংক কোম্পানি আইনের ওই ধারায় বলা হয়েছে, ব্যাংক কোম্পানির কাছে রক্ষিত কোনো আমানত যদি একক ব্যক্তি বা যৌথভাবে একাধিক ব্যক্তির নামে জমা থাকে-তাহলে ওই একক আমানতকারী এককভাবে বা ক্ষেত্র মতো যৌথ আমানতকারী যৌথভাবে নির্ধারিত পদ্ধতিতে এমন এক বা একাধিক ব্যক্তিকে মনোনীত করতে পারবেন। আর আমানতকারীর মৃত্যুর পর আমানতের টাকা মনোনীত ব্যক্তিকে প্রদান করতে হবে।