চমক দেখাতে পারবেন অস্ট্রিয়ার যুবক নেতা সেবাস্তিয়ান

32

অস্ট্রিয়ায় জাতীয় নির্বাচন আজ। এ নির্বাচনে ফ্রন্টরানার বা জনমত জরিপে এগিয়ে আছেন মাত্র ৩১ বছর বয়সী সেবাস্তিয়ান কুর্জ। তিনি রক্ষণশীল দলের নেতা ও বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তবে তিনি কট্টর ডানপন্থি অবস্থান গ্রহণ করেছেন। প্রচ- রকম অভিবাসন বিরোধী। এবার নির্বাচনে তার প্রতিশ্রুতি হলো অভিবাসীরা যেসব রুট দিয়ে প্রবেশ করে তা বন্ধ করে দেয়া। এ ছাড়া আগে থেকে যেসব অভিবাসী অবস্থান করছেন অস্ট্রিয়ায় তাদের সুযোগ সুবিধা সীমিত করে দেয়া। অস্ট্রিয়ায় অবস্থানের মেয়াদ ৫ বছর না হলে কোনো অভিবাসীকে কোনো রকম সুবিধা দেয়া হবে না। তার এসব প্রতিশ্রুতি দেশবাসী গিলেছে ভাল। তাই তিনি ফ্রন্টরানার। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি বাজিমাত করতে পারেন কিনা তা দেখার বিষয়। জনমত জরিপ অনুযায়ী তার দল অস্ট্রিয়ান পিপলস পার্টি (ওভিপি) থাকতে পারে প্রথম স্থানে। অন্যদিকে কট্টর ডানপন্থি দল ফ্রিডম পার্টি (এফপিও) এবং সোশাল ডেমোক্রেটরা নির্বাচনে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকতে পারে। ইউরোপে প্রথম সবচেয়ে কম বয়সী পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়ে চমক সৃষ্টি করেছিলেন সেবাস্তিয়ান। তিনি মাত্র ২৭ বছর বয়সে অস্ট্রিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী হন। জন্ম তার ১৯৮৬ সালের ২৭ শে আগস্ট। এ বছরের মে মাসে তিনি তার দল অস্ট্রিয়ান পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ধারণা করা হচ্ছে অস্ট্রিয়াতে নতুন সরকার হবে জোটভিত্তিক এবং তাতে যোগ দেয়ার সমুহ সম্ভাবনা এফপিও দলের। নির্বাচনী প্রচারণায় এবার সেখানে প্রাধান্য পেয়েছে অভিবাসন ইস্যু। ওদিকে গত বছর অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অল্পের জন্য পরাজিত হয়েছে এফপিও দল। গত ডিসেম্বরে সেখানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয়। তাতে এফপিও দলের প্রার্থী নরবার্ট হোফারকে পরাজিত করেন গ্রিন দলের প্রধান আলেকজান্দার ভ্যান ডার বেলেন। তিনি পান মোট ভোটের শতকরা প্রায় ৫৩ ভাগ ভোট। ২০১৫ সালে ইউরোপজুড়ে শরণার্থীর যে ঢল নামে তার প্রেক্ষিতে হোফার অভিবাসন বিরোধী প্রচারণা চালিয়েছিলেন। এবার সেবাস্তিয়ানও সেই পথ ধরেছেন। তিনিও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ইউরোপে অভিবাসন প্রবেশের পথগুলো বন্ধ করে দেবেন। অভিবাসীদের দেয়া সুযোগ সুবিধা সর্বনিম্ন পর্যায়ে নামিয়ে আনবেন। অন্য বিদেশীরা, যারা অস্ট্রিয়ার সুযোগ সুবিধা ভোগ করছেন তাদের জন্যও তিনি নীতি ঘোষণা করেছেন। বলেছেন, অস্ট্রিয়ায় কমপক্ষে ৫ বছর অবস্থান না করা বিদেশীরা সরকারি সুযোগ সুবিধা পাবে না।

 

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা