চলে গেলেন রক কিংবদন্তি টম পেটি

28

চলে গেলেন জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘দ্য হার্টব্রেকারস’-এর গায়ক কিংবদন্তি রকশিল্পী টম পেটি। সোমবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সকাল) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৬৬ বছর বয়সে মারা যান তিনি। পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদমাধ্যমকে এই খবর দিয়েছেন টম পেটি ও ‘দ্য হার্টব্রেকারস’ ব্যান্ডের ব্যবস্থাপক টনি ডিমিট্রায়াডস। তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্রের মালিবুতে নিজ বাড়িতে টম পেটিকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে দ্রুত ইউসিএলএ  মেডিকেল সেন্টারে নেয়া হয়। সেখানেই তিনি মারা যান। টম  পেটির জন্ম যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় ১৯৫০ সালের ২০শে অক্টোবর। তার চাচা ছিলেন আলোকচিত্রী। ১৯৬০ সালে চাচার মাধ্যমে এলভিস প্রিসলির সঙ্গে সাক্ষাৎ হয় তার। এরপর বদলে যায় টম পেটির জীবন। ১৯৬২ সালে তিনি একটি গিটার সংগ্রহ করেন। স্কুলে  পড়ার সময় ‘দ্য সানডাউনারস’ ও ‘দ্য এপিকস’ ব্যান্ডে গান করতেন। ‘মাডক্রাচ’ ব্যান্ড যখন গঠন করেন, তখন টম পেটির বয়স ১৭ বছর। এটি ভেঙে যাওয়ার পর কয়েকজন বন্ধু মিলে গড়ে  তোলেন ‘টম পেটি অ্যান্ড দ্য হার্টব্রেকারস’ ব্যান্ড। তাদের প্রথম অ্যালবাম বের হয় ১৯৭৬ সালে। ১৯৮৮ সালে জর্জ হ্যারিসন, জেফ লিন, রয় অর্বিসন, বব ডিলান আর টম পেটি গড়েছিলেন ‘সুপারগ্রুপ ট্রাভেলিং উইলবুরিস’। একক শিল্পী হিসেবেও সফল হন টম পেটি। ২০১৫ সালে প্রকাশ হয় টম পেটির আত্মজীবনী ‘পেটি: দ্য বায়োগ্রাফি’। সম্প্রতি ‘দ্য হার্টব্রেকারস’ ব্যান্ডের ৪০ বছর পূর্তি হয়েছে। এ উপলক্ষে সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন টম পেটি। ৩০শে সেপ্টেম্বর সকালে তিনি টুইটারে লিখেছিলেন, ‘দীর্ঘ ৪০ বছর আপনাদের সমর্থন আমাদের অনুপ্রাণিত করেছে। আপনারা পাশে আছেন, তাই আমরাও আছি। আপনাদের ধন্যবাদ।’ এ প্রজন্মের অনেক শিল্পী আর ব্যান্ড টম পেটির গান শুনে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন, অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। এদিকে, টম পেটির মৃত্যুতে  শোক জানিয়েছেন সংগীতশিল্পী স্যার পল ম্যাকার্টনি, রিঙ্গো স্টার, কিড রক, জন মেয়ার, কোল্ডপ্লে, ব্রায়ান উইলসন, ক্যারল কিং, সিন্ডি লাউপার, স্টিফেন কিং, কিফার সাদারল্যান্ড, সেথ মেয়ারস প্রমুখ। নোবেলজয়ী কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী বব ডিলান বলেছেন, আমার জন্য খুবই কষ্টের খবর। আমি ভেঙে পড়েছি। টমকে খুব মনে পড়ছে। তিনি ছিলেন দারুণ পারফর্মার আর একজন ভালো বন্ধু।

 

 

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা