জিতেও তাকিয়ে থাকতে হবে ভারতের দিকে

28

অনূর্ধ্ব-১৮ সাফ ফুটবলে ভারতের বিপক্ষে ৩-৪ গোলে অবিস্মরণীয় জয়ে শুরু বাংলাদেশের। দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের বিপক্ষে ২-০ গোলের দাপুটে জয়। টানা দুই জয়ের পর শিরোপা জয়ের সুবাতাস পেতে শুরু করা বাংলাদেশ তৃতীয় ম্যাচে হেরে বসে নেপালের কাছে। এই হারে বদলে যায় পুরো টুর্নামেন্টের সমীকরণ। টানা চার ম্যাচে হেরে মালদ্বীপ টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে আগেই। বাংলাদেশসহ অন্য চারটি দলের সামনেই খোলা আছে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথ। তিন ম্যাচ শেষে চার দলের পয়েন্টই সমান ৬। এ কারণে সমীকরণ একটু জটিল। নিয়ম অনুযায়ী পয়েন্ট সমান হলে প্রথমে মুখোমুখি লড়াইয়ের হিসাব ধরা হবে। সেখানেও সমতা থাকলে তখন দেখা হবে গোল ব্যবধান। মুখোমুখি লড়াইয়ে বাংলাদেশ ভারতের বিপক্ষে এগিয়ে আছে, আবার নেপালের বিপক্ষে আছে পিছিয়ে।
বাংলাদেশের সামনে এখনো ভালোভাবেই রয়েছে শিরোপা জয়ের সুযোগ। এ ক্ষেত্রে আজ শেষ ম্যাচে নিজেদের দায়িত্ব ঠিকঠাক পালন করতে হবে জাফর ইকবালদের। সঙ্গে তাকিয়ে থাকতে হবে অন্য ম্যাচের দিকেও। বাংলাদেশের সমীকরণটা এখন এমন। শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে জিততে হবে ভুটানের বিপক্ষে। আর নেপালকে হারতে হবে ভারতের কাছে। যে ভারতকে হারিয়ে বাংলাদেশের শুরু, এখন তাদের সহযোগিতা দরকার। অবশ্য নেপাল-ভারত ম্যাচটি ড্র হলেও বাংলাদেশ জিতলেই চ্যাম্পিয়ন। আবার বাংলাদেশও যদি ড্র করে, নেপাল-ভারত ম্যাচও যদি ড্র হয়, তাহলে বাংলাদেশের শিরোপা জয়ের আশা শেষ হয়ে যাবে। শেষ মুহূর্তে শ্রীলঙ্কা নাম প্রত্যাহার করায় পাঁচ জাতি টুর্নামেন্ট হচ্ছে লীগ ভিত্তিতে। মালদ্বীপ টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে। বাংলাদেশসহ অন্য চারটি দলের সামনেই খোলা আছে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথ। তিন ম্যাচ শেষে চার দলের পয়েন্টই সমান ৬। এ কারণে সমীকরণ একটু জটিল। নিয়ম অনুযায়ী পয়েন্ট সমান হলে প্রথমে মুখোমুখি লড়াইয়ের হিসাব ধরা হবে। সেখানেও সমতা থাকলে তখন দেখা হবে গোল ব্যবধান। মুখোমুখি লড়াইয়ে বাংলাদেশ ভারতের বিপক্ষে এগিয়ে আছে, আবার নেপালের বিপক্ষে আছে পিছিয়ে। ফলে টুর্নামেন্টের শেষ দুটি ম্যাচে ড্র বাংলাদেশের জন্য সুখকর কিছু হবে না। প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ খেলবে স্বাগতিক ভুটানের বিপক্ষে। দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে নেপাল ও ভারত। বাংলাদেশ ভুটানকে হারিয়ে নিজেদের কাজটা সেরে রাখুক। পরের ম্যাচে নেপাল না জিতলেই বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন। ভুটানকে হারিয়ে পুরো বাংলাদেশ দল যে ভারতের সবচেয়ে বড় সমর্থক বনে যাবে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই! এখানে শিরোপা জয়ের সুযোগ আছে ভুটানেরও। নেপাল ভারত ম্যাচ যদি ড্র হয়, আর ভুটান যদি বাংলাদেশকে হারিয়ে দেয়। সেক্ষেত্রে শিরোপা উঠবে স্বাগতিকদের হাতে। আপাতত এতো সমীকরণ নিয়ে ভাবতে চান না বাংলাদেশ অধিনায়ক টুটুল হোসেন বাদশা। আসলে নেপালের বিপক্ষে আমাদের পারফরমেন্স ছিল খুবই হতাশার। আমরা ম্যাচে একাধিক সহজ সুযোগ নষ্ট করে ম্যাচটি হেরেছি। শেষ ম্যাচে অন্তত এই ভুলটা করতে চাই না। ভুটানকে হারিয়ে আমরা আমাদের কাজটা এগিয়ে রাখতে চাইÑ বলেন তিনি। এদিকে নেপাল সঙ্গে হারের পরও আশা ছাড়েননি বাংলাদেশের কোচ মাহবুব আলম রক্সি। তার বিশ্বাস ভুটানকে হারিয়ে শিরোপা জিতবে বাংলাদেশই।