ঝিনাইগাতী ১২’শ হেক্টর আমন ফসল এখনও পানির নিচে

40

অতিবর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে অকাল বন্যায় শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার অন্তত ৫টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। গত ৩ সেপ্টেম্বর সকালে মহারশি নদীর ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ ভেঙ্গে ঢলের পানিতে ৫টি ইউনিয়নের অন্তত ৩০টি গ্রাম তলিয়ে যায়। পানি উঠে উপজেলা সদরসহ ঝিনাইগাতী শহরেও। তবে একদিনের মধ্যেই উঁচু জায়গা থেকে পানি নেমে যায়। কিন্তু এই নেমে যাওয়া পানিতে প্রায় সারা উপজেলার নিম্নাঞ্চলেই অকাল বন্যা দেখা দেয়। নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় এসব অঞ্চলের আমন ফসলের ক্ষতি হবার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। বর্তমানে ধানে থোড় আসার সময়, এখন পানি থাকায় থোড় পঁচে যাবার সম্ভাবন দেখা দিয়েছে।
এ ব্যাপারে ঝিনাইগাতীর কৃষি সম্প্রসারণ অফিস থেকে জানা গেছে, উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ১২’শ হেক্টর জমি প্লাবিত হয়েছে। দ্রুত পানি কমে গেলে হয়তো ক্ষতির পরিমান কম হবে, কিন্তু পানি নামতে দেরি হলে ধানের থোড় পঁচে যাবার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।
এদিকে স্থানীয় কৃষকরা জানিয়েছেন, প্রবল বর্ষণ ও বন্যায় আমাদের আমন ফসলে পঁচন রোগ ধরেছে। আগের ফসলও বন্যার কারণে নষ্ট হয়েছে, এবারের ফসল নষ্ট হলে জানি না আমাদের কপালে কী দুর্গতি রয়েছে।