ঝিলিক নতুন গানে ব্যস্ত

55

চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে পেশাগতভাবে গানের জগতে যাত্রা শুরু হয় ঝিলিকের। এ প্রতিযোগিতার প্রথম আসরেই চ্যাম্পিয়ন হন তিনি। এরপর গানের জগতে নিয়মিতই কাজ করছেন এ শিল্পী। ঝিলিকের বিশেষ দিক হলো সব ধরনের গান গাইতে পারা। আর সে কারণেই ভার্সেটাইল শিল্পীর তকমাটাও জুড়ে গেছে তার নামের পাশে। অ্যালবাম, প্লেব্যাক, স্টেজ এসব ক্ষেত্রেই ব্যস্ত ঝিলিক। বিশেষ করে স্টেজে সারা বছরই ব্যস্ততা থাকে তার। দেশ-বিদেশের অসংখ্য বড় কনসার্টে গান গাওয়ার অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন অল্প সময়ে। সব মিলিয়ে চলতি সময়টা কেমন যাচ্ছে? উত্তরে ঝিলিক বলেন, বেশ যাচ্ছে। আমি সব সময় ভালো থাকার চেষ্টা করি। ব্যস্ততার মধ্যে ডুবে থাকি। ব্যস্ততার মধ্যে থাকলে আমি ভালো থাকি। বর্তমান ব্যস্ততা কি নিয়ে? ঝিলিক বলেন, ব্যস্ততাতো অবশ্যই গান নিয়ে। সর্বশেষ নতুন গান প্রকাশ হয়েছে সংগীতার ব্যানারে। ভালো সাড়া পেয়েছি। ‘পরিবর্তন’ ম্যাগাজিনে গাইলাম। আরো কিছু অনুষ্ঠানে সামনে গাওয়ার কথা রয়েছে। তবে সব থেকে ব্যস্ত স্টেজ নিয়ে। যদিও বৃষ্টির মৌসুম থাকায় এখন শো তূলনামূলক কম আয়োজন হচ্ছে। তারপরও যেগুলো হচ্ছে সেগুলো করছি। তবে বৃষ্টির এ সময়টা কাজে লাগাতে চাই। কী রকম সেটা? ঝিলিক বলেন, যেহেতু শো-র ব্যস্ততা কম তাই পরিবার ও বন্ধু-বান্ধবকে সময় দিচ্ছি। সচরাচর সব অনুষ্ঠানে যাওয়ার সুযোগ হয় না। এখন যাচ্ছি, মজা করছি। আর এ সময়টায় আসলে নতুন গান করতে চাই। পাশাপাশি একটি মিউজিক ভিডিও। সেটা কবে নাগাদ আসতে পারে? পরিকল্পনা কেমন? ঝিলিক বলেন, আসলে এখনতো আর অনেক গান নিয়ে অ্যালবাম করে লাভ নেই। সিঙ্গেলস কিংবা ইপি করবো। আর সেই গানটি ভিডিও করে প্রকাশ করবো। চিন্তা করেছি আগামী দুই মাসের মধ্যেই কাজটি করবো। এখন দেখা যাক কি হয়। সিনেমার গানের কি অবস্থা? ঝিলিক বলেন, সিনেমার গান গাইছি। তবে বেছে বেছে কাজ করার চেষ্টা করছি। এটা শুধু সিনেমা না, অডিও গানের ক্ষেত্রেও। মানের দিকটাকে গুরুত্ব দিচ্ছি। কারণ আমি মনে করি অনেক গান করে লাভ নেই। ভালো মানের কিছু গান করলেই যথেষ্ট। চলতি সময়ের একজন শিল্পী হিসেবে বর্তমানে অডিও ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? ঝিলিক বলেন, ইন্ডাস্ট্রি আসলে উত্থান-পতনের মধ্যে দিয়ে চলছে। এই ভালো তো এই খারাপ। ধারাবাহিকতা নেই। কিন্তু এই ধারাবাহিকতটা খুব প্রয়োজন। স্থিতিশীলতা প্রয়োজন। এখনতো ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে। কিন্তু গান প্রকাশের কোনো নীতিমালা নেই। যে যার ইচ্ছেমতো গান প্রকাশ করছে। এ বিষয়টিতে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। পাশাপাশি ডিজিটালি আমরা আরো যত অভ্যস্ত হবো এই ধারাতে ততই মঙ্গল। কারণ সারা বিশ্বেই এভাবে গান প্রকাশ হচ্ছে। আমার বিশ্বাস সামনে গানের অবস্থা ভালোর দিকে যাবে। এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসি। বিয়ের কী খবর? কবে নাগাদ সুখবরটি শোনা যাবে? ঝিলিক হেসে বলেন, আসলে বিয়ে তো করতেই হবে। কিন্তু কোনো সম্পর্কে জড়ানোর সময় আমার নেই। গান ও পড়াশোনা নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হয়। যখন বিষয়টি পাকাপাকি হবে সবাইকে জানাবো।