তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল চায় জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম

39

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুর্নবহাল ও সেনাবাহিনী মোতায়েনসহ ১১ দফা দাবি জানিয়েছে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার সকালে নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় দলটি এসব দাবি জানায়। দলের মহাসচিব মাওলানা নূর হোছাইন কাসেমী নেতৃত্বে ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সভায় উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে দলের নূর হোছাইন কাসেমী সাংবাদিকদের জানান, দলীয় সরকারের অধীনে অতীতের নির্বাচনে কারচুপি ও পেশীশক্তির ব্যবহার অভিযোগ উঠেছে। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। তাই আমরা তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুর্নবহাল করার ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনকে উদ্যোগ গ্রহণের জন্য অনুরোধ করছি। এছাড়া নির্বাচনের এক বছর আগে থেকেই রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য অবাধ সভা-সমাবেশ ও রাজনৈতিক কর্মকা- পরিচালনার পরিবেশ তৈরি এবং সেনা মোতায়েনসহ বেশ কিছু দাবি রেখেছে দলটি। পরে বিকেল তিন টায় ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) সঙ্গে সংলাপ করে ইসি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতিনিধি নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের পক্ষে এবং সেনাবাহিনী মোতায়েন না করার সুপারিশ করেছে দলটি। এনপিপি চেয়ারম্যান শেখ ছালাউদ্দিন ছালুর নেতৃত্বে ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দল ইসির সংলাপে অংশ নেয়। পরে এনপিপি চেয়ারম্যান ছালু বলেন, নির্বাচনকালীন সরকারসহ ১৬টি প্রস্তাব দিয়েছি। বিগত জাতীয় নির্বাচনে নিবন্ধিত যেসব দল অংশ নিয়েছিল, তাদের থেকে প্রতিনিধি নিয়ে সরকার করা যেতে পারে। এনপিপি’র সুপারিশগুলোর অন্যতম হচ্ছে- ভোটে ঢালাওভাবে সেনা মোতায়েনের দরকার নেই, সব দলের অংশ গ্রহণে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চয়তা, অনলাইনে মনোনয়পত্র জমা, প্রবাসী ভোটাধিকার, নতুন রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের ক্ষেত্রে দলের চেয়ারম্যান ও মহাসচিবের যোগ্যতা যাচাই, নির্বাচনে ইভিএমের ব্যবহার না করা ইত্যাদি।

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা