তবুও বিশ্ব আসরে বোল্টই ফেভারিট

24

অবসরের আগ মুহূর্তেও বিশ্বসেরা আছেন উসাইন বোল্ট। জ্যামাইকার ৩০ বছর বয়সী এ দৌড়বিদ ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় আসন্ন বিশ্ব অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশিপ শেষেই অবসর নেবেন বলে জানিয়েছেন। চোটের কারণে অনেক প্রতিযোগিতায় তিনি অংশ না নিলেও লন্ডনের প্রতিযোগিতাতে ১০০ মিটার দৌড়ে বোল্টকেই সম্ভাব্য শিরোপাজয়ী ধরা হচ্ছে। আগের তিন বিশ্ব শিরোপাও বোল্টের দখলে। সপ্তাহখানেক আগে মোনাকোতে বোল্ট ৯.৯৫ সেকেন্ড সময়ে ১০০ মিটার দৌড় শেষ করেন। সাবেক বিশ্বরেকর্ডধারী যুক্তরাষ্ট্রের ডনোভান বেইলিও মনে করেন বোল্টই সেরা। অলিম্পিক বিজয়ী বেইলি বলেন, যারা বড় কোনো আসরে বোল্টের বিপক্ষে বাজি ধরেন আমি তাদের স্মার্ট বলবো না।’ বেইলির জন্মও জ্যামাইাকাতে। তবে তিনি কানাডার নাগরিক হিসেবেই বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিতেন।
এবছর অবশ্য বোল্টের চেয়ে কম সময়ে ১০০ মিটার দৌড়েছেন অন্তত ছয়জন। যুক্তরাষ্ট্রের ক্রিস্টিয়ান কোলম্যান গত মাসে ওরেগনের এক আসরে সময় নেন ৯.৮২ সেকেন্ড। বোল্টের স্বদেশী ইয়োহান ব্লেক তালিকায় দ্বিতীয়স্থানে আছেন ৯.৯০ সেকেন্ড সময় নিয়ে। ৯.৯২ সেকেন্ড সময় নিয়ে তৃতীয়স্থানে আছেন তিনজন- দক্ষিণ আফ্রিকার আকানি সিম্বিনে ও যুক্তরাষ্ট্রের ক্যামেরন বুরেল ও ক্রিস্টোফার বেলচার। আর বোল্টের পাশে আছেন যুক্তরাষ্ট্রের জাস্টিন গ্যাটলিন। তবে ১৯৯৭ বিশ্ব অ্যাথলেটিকসের বিজয়ী ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর অটো বোল্ডন মনে করেন বোল্টের সমাপনী দৌড় ম্লান করে দিতে পারেন একজন- তিনি তারই স্বদেশী ব্লেক, যদি তিনি সত্যিকার অর্থেই সুস্থ থাকেন। বোল্টের দখলে বিশ্বরেকর্ড ছাড়াও আটটি অলিম্পিক স্বর্ণ পদক আর ১১টি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের স্বর্ণপদক রয়েছে। অলিম্পিকের চারপদকজয়ী বোল্ডন মনে করেন না যে, সর্বকালের সেরা দৌড়বিদ নিয়ে কারো দ্বিমত আছে। এমন কাউকে পাবেন না যে বোল্ট ছাড়া অন্য কারো নাম বলবে। তিনি বলেন, জেসি ওয়েন্স হতে পারেন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আর কার্ল লুইস স্প্রিন্টটাকে (স্বল্পপাল্লার দৌড়) লাভজনক করে গেছেন। কিন্তু বোল্টই সর্বকালের সেরা।