তিন গোল খেয়ে ভারতের জালে ৪ গোল ভারতের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় জয় বাংলাদেশ যুবাদের

26

প্রথমার্ধের খেলা দেখে ম্যাচের শেষটা বোঝা কঠিন ছিল। অনূর্ধ্ব-১৮ সাফ ফুটবলে শক্তিধর ভারতের বিপক্ষে আসাধারণ এক জয় কুড়ালো বাংলাদেশের যুবারা। গতকাল ভুটানের রাজধানী থিম্পুতে ম্যাচের প্রথমার্ধে ৩-০ গোলে পিছিয়ে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৮ দল। তবে বিরতির পর বদলে যায় বাংলাদেশ যুব ফুটবলারদের চেহারা। গুনে গুনে চার গোল দিয়ে ভারতের মুঠো থেকে ম্যাচ বের করে আনে তারা। থিম্পুর চিলিংমান স্টেডিয়ামে রক্ষণভাগের ভুলে ম্যাচের ১৯তম মিনিটে প্রথম গোল হজম করে কোচ মাহবুব হোসেন রক্সির শিষ্যরা। ১২ মিনিট পর পেনাল্টি দিয়ে বসে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৮ দল। আর বিরতিতে যাওয়ার আগ মুহূর্তে তারা হজম করে তৃতীয় গোল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ভোজবাজির মতো পাল্টে যায় সব। জাফর ইকবাল, রহমত মিয়ারা তুলে নেয় দারুণ এক জয়। ম্যাচের যোগ করা সময়ে জাফর ইকবালের হেডের গোলে অবিস্মরণীয় জয় নিশ্চিত হয় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৮ দলের। উইঙ্গার জাফর ইকবাল করেন জোড়া গোল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই ভারতকে চেপে ধরে বাংলাদেশ যুবারা। ফুল প্রেসিং ফুটবলে ব্যতিব্যস্ত রাখে প্রতিপক্ষ দলকে। ৫৫ মিনিটে কর্নার থেকে হেডে দলের প্রথম গোলটিও করেন জাফরই। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৮ দলের বল পায়ে অপর দুই গোল করেন রহমত মিয়া ও সুফিল। ৬০তম মিনিটে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৮ দলের দ্বিতীয় গোল আদায় করেন রহমত মিয়া। আর ৭৪তম মিনিটে গোল নিয়ে সমতায় ফেরে বাংলাদেশ। এই গোলেও ছোঁয়া জাফর ইকবালের। বাম প্রান্ত দিয়ে উইংগার জাফরের ক্রসে ফাঁকায় হেডে সমতাসূচক গোলটি আদায় করেন সুফিল। তবে নাটকের তখনও বাকি ছিল। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে কর্নার পায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৮। আর বাঁকানো কর্নার কিকের বলে দারুণ হেড থেকে গোল নিয়ে পুরো দলকে আনন্দে ভাসান জাফর ইকবাল।
চলতি বছরই ভারতে বসবে ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ আসর। ওই আসরের জন্য ৪০ ফুটবলারকে টানা এক বছর অনুশীলনের মধ্যে রেখেছে দেশটি। সেখান থেকে বাদপড়াদের নিয়ে গড়া হয়েছে এবারের সাফ দল। তাই কাগজে -কলমে ভারতই পাচ্ছে ফেভারিটের তকমা। আগামীকাল নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

 

 

 

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা