দীর্ঘদিন পর সিলেটে বিএনপির শোডাউন

26

সিলেটের মাঠে উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে বিএনপি। দীর্ঘদিন পর মাঠের রাজনীতিতে শোডাউন করেছে তারা। পাশাপাশি খণ্ডখণ্ড মিছিল করেছে অঙ্গ সংগঠনের নেতারা। রাজপথে প্রশাসনের মুখোমুখি হতেও পিছপা হচ্ছেন না নেতারা। এ কারণে সিনিয়র নেতারা অগ্রভাগে থেকে কর্মসূচি পালনে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন। গতকাল সিলেটের রাজপথ কাঁপিয়েছে বিএনপির নেতারা। এমন কর্মসূচি গেল তিন বছরের মধ্যে সিলেটে পালিত হয়নি। এই কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আবদুল মুক্তাদির। তার উপস্থিতে ছাত্রদল, যুবদল ও বিএনপির নেতারা সাহস নিয়ে রাজপথে নেমে এসেছেন বলে জানিয়েছেন নেতারা। কমিটি গঠনের পর থেকে এতোদিন সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতারা হোমওয়ার্কে ব্যস্ত ছিলেন। জেলা, উপজেলা, পৌরসভা, ওয়ার্ড এমনকি পাড়ায় পাড়ায় দলকে সুসংগঠিত করতে ছুটে গেছেন সিলেটের নেতারা। প্রতিটি কমিটিই তারা গুরুত্ব সহকারে গঠনের পর সদস্য সংগ্রহ অভিযান চালান। আর সবই করেন দলের জেলা ও মহানগর পর্যায়ের সিনিয়র নেতারা। এদিকে- গত বৃহস্পতি ও গতকাল সিলেটে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। বৃহস্পতিবারের কর্মসূচিতে পুলিশি বাধা ছিল। মিছিলের আগে পুলিশ ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ধাওয়া করে লাঠিচার্জ করেছে। এরপরও জেলা ও মহানগর বিএনপির সিনিয়র নেতাদের নেতৃত্বে মিছিলে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীদের সরব অংশগ্রহণ ছিল। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সিলেট বিএনপির নেতারা তাদের কর্মসূচি পালন করেন। গতকাল তারা কেন্দ্রীয় কর্মসূচি পালনে বিকাল ৩টায় নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে জমায়েতের ঘোষণা দেন। আর এই ঘোষণায় বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী এসে উপস্থিত হন কর্মসূচি পালনে। বিকাল ৩টায় রেজিস্ট্রারি মাঠে সমাবেশ করেন তারা। সমাবেশের প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আবদুল মুক্তাদির আন্দোলন সংগ্রামে সবাইকে সোচ্চার থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন- অবৈধ সরকার দেশে নানা ঘটনার জন্ম দিচ্ছে। তারা গণতন্ত্রকে পদদলিত করে দেশের মানুষকে অবিরাম নির্যাতন চালাচ্ছে। সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের শামীমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদের পরিচালনায় সমাবেশে সাবেক এমপি শফি আহমদ চৌধুরী, সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম প্রমুখ। মাঠে যুবদল: কেন্দ্রীয় কর্মসূচি পালনে গতকাল মাঠে সরব ছিল যুবদলও। যুবদল সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার নেতাকর্মীরা নগরে মিছিল দিয়ে চৌহাট্টা পয়েন্টে গিয়ে সমাবেশ করেছে। যুবদলের মিছিল ও সমাবেশে বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীদের উপস্থিতি ছিল। সিলেট জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-সম্পাদক নিজাম ইউ জায়গীরদারের পরিচালনায় মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মহানগর যুবদলের সিনিয়র নেতা আবদুল আজিজ, জেলা যুবদলের সহ-প্রচার সম্পাদক আবদুল মালেক, হাবিবুর রহমান হাবিব, সুহেল মাহমুদ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ও মহানগর যুবদল নেতা সাব্বির আহমদ, আবদুল খালিক, সাইদুর রহমান সাঈদ, সাহেদ আহমদ, ময়নুল ইসলাম মঞ্জুর, মকসুদুল করিম নোহেল, আবদুস সোবহান, শরীফ উদ্দিন মেহেদী, কয়েছ আহমদ সাগর, ময়নুল ইসলাম স্বাধীন, মাসুদ আলী মাসুম, শাহজাহান আহমদ জুয়েল, মঈন উদ্দিন, খসরুজ্জামান খসরু প্রমুখ। স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ: মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে সিলেট জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দল। দুপুর ২টায় মিছিলটি সিলেট নগরীর ধোপাদিঘীরপাড় হতে সিলেট নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সিটি পয়েন্টে এক বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক আজমল হোসেন রায়হানের সভাপতিত্বে ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা দীপক রায়ের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক মওদুদুল হক মওদুদ, কাউন্সিলর আবদুর রকিব তুহিন, শাহিদুল ইসলাম কাদির, আমিনুল হক বেলাল, জসিম উদ্দিন, আবুল খায়ের, নাজিম উদ্দিন, আলতাফ হোসেন বিলাল, আবদুল হান্নান, মোস্তফা কামাল ফরহাদ, দেওয়ান কামরান, আকবর হোসেন কয়ছর প্রমুখ। এদিকে- সিলেটের এমসি কলেজসহ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও ছাত্রদলের নেতারা বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

 

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা