দীর্ঘদিন পর

36

কোনো পূর্বঘোষণা ছাড়াই দীর্ঘদিন পর শুক্রবার বিকেলে শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে আসেন ওমর সানি ও শাকিব খান। আর এটা সম্ভব করেছেন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক জায়েদ খান। মূলত শাকিব খান বিকেলে উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘আমি নেতা হবো’ ছবির শুটিং করছিলেন। সেখানে ওমর সানিও আসেন। সে সেটে কুশল বিনিময় করতে আসেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। তিনি শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে তাদেরকে নিয়ে আসেন। আট মাস পর এফডিসিতে এলেন দেশের চলচ্চিত্রের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে এসে সবার সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। তখন এফডিসিতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে উপস্থিত সবার মুখে ছিল হাসি। শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে সভাপতির চেয়ারে বসে শাকিব খান সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার জন্য আহ্বান জানান। তিনি বলেন, আমাদের ইন্ডাস্ট্রির আজ করুণ অবস্থা। কাজ নেই। অনেকেই বেকার। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ ঘটাতে হবে। মানসম্মত কাজ কীভাবে বাড়ানো যায়, সেদিকে খেয়াল করতে হবে। অনেক দিন পর আজ এফডিসিতে নতুন ছবির কাজ হচ্ছে। শিল্পী সমিতি সম্পর্কে তিনি বলেন, নায়করাজ রাজ্জাক এই সংগঠন গড়েছিলেন। তার স্মৃতি যথাযথভাবে সংরক্ষণ করতে হবে। তাকে যেন সম্মান জানানো হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এদিকে জায়েদ খান ঘোষণা করেন, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাবেক সভাপতি শাকিব খানকে সংগঠনটির উপদেষ্টা করা হবে। বিশিষ্ট আরও কয়েকজন শিল্পীকেও উপদেষ্টা করার পরিকল্পনার কথা জানান তিনি। জায়েদ খান আরো বলেন, এখন হানাহানি করে, চেয়ার নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করে ইন্ডাস্ট্রি বাঁচানো যাবে না। এখন কাজ করে ইন্ডাস্ট্রিকে এগিয়ে নিতে হবে। শাকিব খান বাংলাদেশের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির শুভেচ্ছাদূত। আমরা তাকে নিয়ে গর্ব করি। আর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি কাউকে নিষিদ্ধ করেনি। শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে ওমর সানি নায়করাজ রাজ্জাকের স্মৃতি ধরে রাখার পরামর্শ দেন। শাকিব খান ও ওমর সানি ৪০ মিনিট শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে অবস্থান করেন। এরপর জায়েদের হাত ধরেই শিল্পী সমিতির কার্যালয় থেকে ‘আমি নেতা হবো’র মেকআপ রুমে যান। এ সংবাদ শোনার পর পরিচালকসহ চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অন্যরা খুব খুশি হন।