দীর্ঘ ৪৬ বছর পর শেরপুরের নিউমার্কেটের রাস্তা ও ড্রেন পূন: নির্মাণ ব্যবসায়ী সহ পৌরবাসীর সন্তোষ প্রকাশ..

84

জি.এইচ হান্নান ঃ শেরপুর জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্র নিউমার্কেটটি বিগত ১৯৭০ সালে তৎকালীন পূর্বপাকিস্তান সরকার ও প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী পৌরসভার অর্থায়নে নির্মাণ করা হয় ৫০ কক্ষ বিশিষ্ট মার্কেট। মার্কেটটি অল্প পরিসরে রাস্তা ও একটি ড্রেন নির্মাণ করা হয়। তখন নিউমার্কেটের মধ্যস্থল ছিল সবুজ ফাঁকা মাঠ সেখানে চলতো রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ। দীর্ঘ ৪৬ বছর পূর্বে গড়ে উঠা মার্কেটের রাস্তা ড্রেন সংস্কার না করার ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে কাদা-জলে একাকার। এমন অবস্থায় ব্যবসায়ীসহ মানুষের নিউমার্কেটে ঢোকা হয়ে উঠে কষ্টসাধ্য এবং জনদুর্ভোগে পরিণত হয়। দীর্ঘদিন পর হলেও নিউমার্কেটের বেশ কয়েকটি রাস্তা এবং ড্রেন নির্মাণ হওয়ায় ব্যবসায়ীসহ পৌরবাসীর সন্তোষ প্রকাশ করতে দেখা যায়।

পৌর প্রকৌশল কর্তৃপক্ষ জানায় পৌর নিউমার্কেট একসময় ৫০টি কক্ষ নিয়ে যাত্রা শুরু করলেও পরবর্তীতে পুকুর ভরাট করে এবং মধ্যস্থল সবুজ মাঠে আরও ৩টি দ্বিতল মার্কেট গড়ে উঠে। সেই সময় জনসাধারণসহ ক্রেতাব্যবসায়ীদের চলাচলের জন্য সেভাবে রাস্তা, ড্রেনেজ ব্যবস্থা না করার ফলে মার্কেটের বেহাল অবস্থা হয়ে পড়ে। সামান্য বৃষ্টিতেই মানুষের চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে এবং রূপ নেয় এক জনদুর্ভোগের। নিউমার্কেট সম্প্রসারণের পর গার্মেন্টস দোকান, কসমেটিকস, কম্পিউটার দোকান এবং ৩টি হোটেলসহ বিভিন্ন দোকানপাঠ গড়ে উঠে। পৌর মেয়র আলহাজ্ব গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন এ প্রতিনিধিকে জানান, নিউমার্কেটের উন্নয়ন ও মানুষকে নিউমার্কেটমূখী কেনা-কাটা করতেই এমন আধুনিক রাস্তা ও ড্রেনেজ নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। ইউজিআইআইপি-৩ প্রকল্পের আওতায় এডিবি ও এফআইডি এবং জিওবি’র ৩৯ লক্ষ টাকা অর্থায়নে টাঙ্গাইল জেলার এসি কোর্ট (জেভি) নামের প্রতিষ্ঠানটি প্রকল্পের ঠিাকাদার হিসেবে কাজ করছেন। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে নিউমার্কেটের পূন: সংস্কার কাজ সমাপ্ত হবে বলে আশা ব্যাক্ত করেণ।