দুই বছরেই ‘শিরোপার রাজা’ জিদান

33

রিয়াল মাদ্রিদের কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন এখনো দুই বছরও হয়নি। কিন্তু এরই মধ্যে ক্লাবটির সর্বকালের সফল কোচদের তালিকায় চার নম্বরে উঠে গেছেন জিনেদিন জিদান। ২০১৬ সালের ৪ জানুয়ারি রাফায়েল বেনিতেজকে বরখাস্ত করে রিয়াল মাদ্রিদ। নতুন কোচ হিসেবে নাম ঘোষণা করা হয় সাবেক খেলোয়াড় জিনেদিন জিদানের। এতে রিয়ালে তার কোচিং ক্যারিয়ার ২০ মাস মতো। কিন্তু এরই মধ্যে সাফল্যের প্রায় সব পালক নিজের মুকুটে যোগ করেছেন। দুই বছরের মধ্যে তার সামনে আসা আট শিরোপার সুযোগের ৬টিই কাজে লাগিয়েছেন। জিতেছেন ৬ শিরোপা। কোচ হিসেবে ৭৫ শতাংশ শিরোপা জিতেছেন তিনি। গত মৌসুমে প্রথম ক্লাব হিসেবে টানা দুইবার ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা জেতে রিয়াল মাদ্রিদ। আর ১৯৯০ সালের পর এবার টানা দুইবার ইউয়েফা সুপার কাপের শিরোপা জিতলো তারা। এই চার শিরোপাই এসেছে জিনেদিন জিদানের অধীনে। এছাড়া গত মৌসুমে স্প্যানিশ লা-লিগা ও ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা জেতে জিদানের শিষ্যরা। এবার ইউয়েফা সুপার কাপের শিরোপা জিতে রিয়ালের কোচিং ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ ৬ শিরোপা এখন জিদানের। তার আগে আছেন ভিসেন্ত দেল বস্ক। ১৯৯৪, ১৯৯৬ ও ১৯৯৯-২০০৩- এই তিন দফায় রিয়ালের কোচ হিসেবে তিনি জেতেন সাত শিরোপা। জিদান তার থেকে মাত্র এক শিরোপা পেছনে। আর জিদানের চেয়ে দুই শিরোপা বেশি জিতে দ্বিতীয় স্থানে আছেন স্প্যানিশ লুইস মলোওনি। ১৯৭৪ থেকে ১৯৮৬ সালের মধ্যে চার দফায় ক্লাবটির কোচিং করিয়ে তিনি রিয়ালকে জেতান আট শিরোপা। আর স্পেনের ক্লাবটির সবচেয়ে সফল কোচ মিগুয়েল মুনোজ। ১৯৫৯ ও ১৯৬০-১৯৭৪- দুই দফায় ক্লাবটির কোচিং করিয়ে তিনি জেতান ১৪ শিরোপা। প্রথম দুইজনকে টপকানো হয়তো জিদানের এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। কিন্তু মিগুয়েলকে টপকাতে হলে তাকে পাড়ি দিতে হবে অনেক পথ। তারচেয়ে এখনো ৮ শিরোপা পেছনে জিনেদিন জিদান। তবে মাত্র দুই বছরে ৬ শিরোপা জেতায় জিদানের পক্ষে মিগুয়েলকে টপাকো একেবারে অসম্ভব নয়।