নকলায় প্রসব ছাড়াই প্রতিদিন ১৩ লিটার দুধ দিচ্ছে এক গাভী

274

আব্দুল মোত্তালেব সেলিম নকলা ঃ

শেরপুরের নকলা উপজেলা গড়ের গাঁও এলাকার মৃত নজুমদ্দিনের পুত্র রাজমিস্ত্রী ছায়েদুল ইসলাম এর একটি গাভী বাচ্চা প্রসব ছাড়াই ১৩ লিটার দুধ দিচ্ছে। এমন গাভীকে বলা হয় কামধেনু, এমনটাই জানিয়েছেন পশু চিকিৎসকরা।
ছায়েদুল জানায়, বছর খানেক সে গাভীটিকে ক্রয় করে। কিন্তু সময় হলেও উন্নতজাতের এই গাভীটি গর্ভধারণ করছিল না। এ ব্যাপারে পশু চিকিৎসকের কাছে যায় সে। চিকিৎসক নানা ভাবে এবং হরমোন প্রয়োগ করলেও গাভীটি গর্ভবতী হয়নি। এক পর্যায়ে সে গাভীটি বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়। মাংস ব্যবসায়ীরা গাভীটির দামও করে একলাখ টাকা উপরে।
কিন্তু পালা গাভীটিকে মাংস ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করতে মন চাইছিল না তার। কিছুদিন পর হঠাৎ করেই গাভীটির ওলান ফোলা দেখে কৌতুহলবশত দোহাতে যায় ছায়েদুুল। প্রথমে ওলান থেকে বেশ পরিমান পানি বের হয়। তারপর পাতলা দুধ বের হতে থাকে। কদিন পর থেকেই স্বাভাবিক দুধ এসে যায় গাভীটির ওলানে।
বর্তমানে গাভীটি প্রতিদিন প্রায় ১৩ লিটার দুধ দিচ্ছে। এই দুধ বাজারেও বিক্রি করছেন ছায়েদুল। দুধ যারা নিচ্ছে তারা তাকে জানিয়েছেন, গাভীটির দুধ অন্যান্য গাভীর তুলনায় মিষ্টি এবং ঘন।
এ ব্যাপারে ্উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. শহীদুল ইসলাম বলেন, হরমোনজনিত কারণে এমন হতে পারে। এ ধরণের গাভীকে সাধারণত ‘কামধেনু’ হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়। এসব গাভী প্রসব ছাড়াও দুধ দিতে সক্ষম হয় এবং এই দুধ সাধারণ দুধের মতোই উপকারী এবং সুস্বাদু।