‘নাটক-টেলিছবি আর চলচ্চিত্র নির্মাণ এক না’

33

তিনবারের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী সাদিকা পারভিন পপি। নতুন তেমন কোনো ছবিতে অনেকদিনই তিনি নেই। তাই দর্শকের সঙ্গে তার দেখা হওয়ার সুযোগটা এখন আগের চেয়ে একটু কম। গত কয়েক বছরে যে কটি ছবিই তার অভিনয়ে মুক্তি পেয়েছে, সে সবক’টির কাজই অনেক আগে করেছিলেন পপি। সবশেষ ‘পৌষ মাসের পিরিত’ ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। ছবিটি পরিচালনা করেন নারগিস আক্তার। সেটাও গত বছর মুক্তি পায়। এবার তার অভিনীত নতুন আরেকটি ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। নাম ‘সোনাবন্ধু’। পরিচালনা করেছেন জাহাঙ্গীর আলম সুমন। এ ছবিটি নিয়ে পপি মানবজমিনকে বলেন, ‘সোনাবন্ধু’ একটি গ্রামীণ গল্পের ছবি। এতে ভিন্ন ধরনের একটি চরিত্রে কাজ করতে পেরে আমার অনেক ভালো লেগেছে। সম্প্রতি ছবিটি সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। আমি এ ছবিতে রশ্মি নামের একটি চরিত্রে অভিনয় করেছি। এখানে বেশিরভাগ সময় দর্শক আমাকে সাদা কাপড়ে মোড়ানো বিধবা মেয়ে হিসেবে দেখতে পাবে। আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ডিএ তায়েব ভাই। আর একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন পরীমনি। ছবির কাহিনীতে তিনটি প্লট রয়েছে। আশা করছি, দীর্ঘদিন পর দর্শক খুব ভালো একটি গল্পে আমাকে দেখতে পাবেন। পপি এবার মিশা সওদাগর-জায়েদ খান প্যানেল থেকে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে অংশ নিয়েছিলেন। আর নির্বাচনে জয়লাভও করেছেন তিনি। শিল্পী সমিতির সদস্য হবার পর কি কি পরিবর্তন তার চোখে পড়েছে জানতে চাইলে পপি বলেন, আমার তো মনে হয় সমিতিতে নতুন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকরাসহ অন্যরা আসার পর বেশ ভালো পরিবর্তন হয়েছে। শিল্পী, টেকনিশিয়ানসহ যারা এক সময় এফডিসিতে আসতেন না তারাও নিয়মিত আসছেন। বিভিন্ন কাজ নিয়ে পরামর্শ করছেন। আর নির্বাচন হয়ে যাবার পর খুব বেশি সময় পার হয়নি। তাই আমার বিশ্বাস, শিল্পী সমিতি সামনে অবশ্যই ভালো কিছু কাজ করবে। মনতাজুর রহমান আকবরের পরিচালনায় ‘কুলি’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়েছিল পপির। ছবিটি মুক্তি পায় ১৯৯৭ সালে। সেই হিসেবে ফিল্মি ক্যারিয়ারের ২০ বছরে পা দিয়েছেন তিনি। ‘আমার ঘর আমার বেহেশত’, ‘বিদ্রোহ চারিদিকে’, ‘কে আমার বাবা’, ‘জানের জান’, ‘কারাগার’, ‘বিদ্রোহী পদ্মা’, ‘রানীকুঠির বাকি ইতিহাস’, ‘মেঘের কোলে রোদ’, ‘গঙ্গাযাত্রা’সহ অসংখ্য হিট-সুপারহিট ছবিতে অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। গত কয়েক বছর ধরেই চলচ্চিত্রের বাজার খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। ছবিতে লগ্নি করেও টাকা ফেরত পাচ্ছেন না প্রযোজকরা। এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে পপি বলেন, যে কেউ চাইলে ৫-৭ লাখ টাকা লগ্নি করে নাটক বা টেলিছবি বানাতে পারেন। কিন্তু বললেই চলচ্চিত্র বানানো সম্ভব হয় না। এরজন্য উপযুক্ত বাজেট অর্থাৎ কমপক্ষে কোটি টাকা বাজেটের প্রয়োজন হয়। তাই নাটক-টেলিছবি আর চলচ্চিত্র নির্মাণ এক না। ভালো মানের ছবিতে অনেক অ্যারেঞ্জমেন্টেরও দরকার হয়। আমি চলচ্চিত্রের মানুষ। তাই সবসময় মনের মতো চরিত্র ও গল্পের অপেক্ষায় থাকি। গত রোজার ঈদে কায়সার আহমেদ পরিচালিত ‘মেন্টাল’ নামে একটি নাটকে অভিনয় করেছিলেন পপি। এরপর এখনো নতুন কোনো নাটকে অভিনয় করেননি তিনি। তবে খুব শিগগিরই ‘রাজপথে আছি’ নামে একটি ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন এ অভিনেত্রী। এ ছবিতে তার নায়ক হিসেবে দেখা যাবে জায়েদ খানকে। ছবিটি পরিচালনা করবেন জাভেদ। এ প্রসঙ্গে পপি বলেন, রাজনৈতিক কাহিনী থাকছে এ ছবিতে। এখানে আমাকে পুলিশ চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে। চরিত্রের নাম শুভ্রতা। প্রায় ১৭ বছর পর আবারো পুলিশের চরিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছি। এর আগে মনতাজুর রহমান আকবরের পরিচালনায় ‘কে আমার বাবা’ ছবিতে পুলিশ চরিত্রে অভিনয় করেছিলাম। কয়েকদিন আগেই ছবির শুটিং শুরু হবার কথা ছিল। তবে বৃষ্টির কারণে তা সম্ভব হয়নি। আশা করছি, খুব শিগগিরই এ ছবির কাজ শুরু হবে।