নালিতাবাড়ীতে করোনা পজিটিভ পরিবারের পাশে ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল

51

মঞ্জুরুল আহসান : ঢাকা ফেরত করোনা আক্রান্ত আনারুলের পরিবারের পাঁচ সদস্য। বাড়িওয়ালা তাদেরকে তাড়িয়ে দিয়েছে। পরে তারা চলে আসেন নিজ বাড়ি নালিতাবাড়ীর পিঠাপুনি গ্রামে। গ্রামের মানুষ জানতে পারে আনারুলের পরিবারের পাঁচ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। কেউ যায়না তাদের কাছে। ফলে মানবেতর জীবন চলতে থাকে তাদের।

খবর পেয়ে ৩০ এপ্রিল শুক্রবার বিকেলে  নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম চাল, ডাল, লবন ও তেল সহ অন্যান্য দ্রব্য সামগ্রী পাঠিয়ে দেন।

জানা গেছে, আনারুল ইসলাম (৪০) ২৮ এপ্রিল বুধবার ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পরীক্ষার পর পরিবারের পাঁচ সদস্যের সবাই করোনা পজিটিভ। সংক্রমণ মৃদু হওয়ায় হাসপাতাল কতৃপক্ষ তাদেরকে দশ দিনের ঔষধ দিয়ে বাড়িতে চিকিৎসা নিতে বলেন। এতে অসহায় হয়ে পড়েন পরিবার প্রধান আনারুল ইসলাম। তিনি ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিকের জি ব্লকের ১৭ নম্বর সড়কের একটি আবাসিক বাড়িতে দারোয়ানের চাকুরি করতেন। পরিবারের সবাই করোনা পজিটিভ হওয়ায় ওই বাড়িওয়ালা তাদের তাড়িয়ে দিয়েছেন।

অসহায় আনারুল ঢাকার কোথাও ঠাঁই না পেয়ে স্ব পরিবারে চলে আসেন গ্রামের বাড়ি নালিতাবাড়ী উপজেলার কাকরকান্দি ইউনিয়নের শালমারা পিঠাপুনি গ্রামে। এখানে এসে তিনি আরো সমস্যায় পড়েন। করোনা পজিটিভের খবরে কেউ খবর নেয়না আনারুলের। কঠিন মানবেতর জীবন চলতে থাকে আনারুল পরিবারের। খবর পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম আনারুলের পরিবারের প্রতি সহযোগিতার হাতটি বাড়িয়ে দেন।

ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম জানান, করোনার এই মহামারিতে আনারুলের প্রতি ওই বাড়িওয়ালার এমন অমানবিক আচরণে আমরা খুব কষ্ট পেয়েছি। আমরা অসহায় পরিবারটির পাশে দাঁড়ানোর জন্য সাধ্যমতো চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।