নালিতাবাড়ীতে ডিভোর্সী নারী ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

140

মঞ্জুরুল আহসান : শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলায় ডিভোর্সী এক নারীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে ২২ জুলাই বৃহস্পতিবার সকালে আদালতে প্রেরণ করেছেন নালিতাবাড়ী থানা পুলিশ।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, পূর্ব কাপাসিয়া গ্রামের মোসলেম উদ্দীনের ছেলে তিন সন্তানের জনক মো: জাহাঙ্গীর আলমের সাথে একই গ্রামের বিল্লাল হোসেনের ডিভোর্সী কন্যার (২২) দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জাহাঙ্গীর ওই নারীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। ২০ জুলাই মঙ্গলবার রাতে জাহাঙ্গীর ওই মেয়ের বাড়িতে যায় এবং ভিকটিমকে ধর্ষণ করে। ধর্ষিতা নারী তাকে বিয়ে করার জন্য জাহাঙ্গীরকে চাপ সৃষ্টি করে। পরে ওই নারীর ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে এবং অভিযুক্ত জাহাঙ্গীরকে ধরতে চেষ্টা করেন। এ সময় জাহাঙ্গীর পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে জাহাঙ্গীর আলমকে আসামী করে ঈদের দিন বুধবার দুপুরে ভিকটিম বাদী হয়ে নালিতাবাড়ী থানায় ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন।

নালিতাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বছির আহমেদ বাদলের নেতৃত্বে এসআই ইমান আলী, আনোয়ার হোসেন ও এএসআই জগলুল পাশা সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে বুধবার বিকেলেই পূর্ব কাপাসিয়া গ্রাম থেকে জাহাঙ্গীরকে গ্রেফতার করেন।

নালিতাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বছির আহমেদ বাদল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেপ্তার  করে। বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেপ্তারকৃত আসামীকে আদালতে প্রেরণ করা হয় এবং ভিকটিমকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।