নেরিকা জাতের আউশ আবাদ পরিদর্শন

36

 

শফিউল আলম লাভলুঃ

 

শেরপুরের নকলায় ড্রাম সিডারের মাধ্যমে রোপনকৃত নেরিকা জাতের আউশ ধানের আবাদ পরিদর্শন করেছেন কৃষি অধিদপ্তরের ময়মনসিংহ অঞ্চলের উপপরিচালক অমিতাভ দাস। রবিবার ৭ নং টালকী ইউনিয়নের চাষী জুলহাস ও নজরুলের চাষকৃত ৩ একর জমির আবাদ পরিদর্শন করা হয়।

ড্রাম সিডারের মাধ্যমে রোপন বিষয়ে শেরপুর কৃষি অধিদপ্তরের উপপরিচালক আশরাফ উদ্দিন জানান, ড্রাম সিডারের মাধ্যমে ধান রোপন করতে কোন জ্বালানী খরচ নেই। একজন দক্ষ শ্রমিকের পক্ষে প্রতিদিন প্রায় ২ একর জমিতে ধান রোপন করা সম্ভব।’

তিনি আরো জানান, যেহেতু এ পদ্ধতিতে বীজতলা করতে হয় না তাই বীজতলার সময় বাঁচিয়ে সরাসরি কুশি হওয়া ধান ড্রা সিডারের মাধ্যমে রোপন করা যায়। ফলে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে অন্তত ৭/৮ দিন আগেই ধান কাটা যায়।

পরিদর্শনের সময় উপপরিচালক আশরাফ উদ্দিন, অতিরিক্ত উপপরিচালক আঃ ছাত্তার, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির সহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির জানান, নকলা উপজেলায় প্রায় ১০ একর জমিতে ড্রাম সিডার পদ্ধতিতে নেরিকা জাতের আউশ ধান রোপন করা হয়েছে।

আবহাওয়া ভালো থাকলে এবং চাষীরা নিয়মিত কৃষি অফিসের পরামর্শ নিলে উৎপাদন আশাতীত হবে বলেও জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

 

-সম্পাদিত