পাকিস্তান বিধ্বস্ত, ফাইনালে ভারত

22

এশিয়া কাপের আগের নয় আসরের সাতটিতেই ফাইনাল খেলেছে ভারত। ২০০৩ ও ২০০৭ এ চ্যাম্পিয়ন হওয়া দলটি রানার্সআপ হয় ১৯৮২, ১৯৮৫, ১৯৮৯, ১৯৯৪ ও ২০১৩ সালে। গতকাল মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে সুপার ফোরে নিজেদের শেষ ম্যাচে পাকিস্তানকে ৪-০ গোলে হারিয়ে আবারো ফাইনালে তারা। গ্রুপ পর্বের ম্যাচেও পাকিস্তানকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল ভারত। ফাইনাল নির্ধারণী এ ম্যাচে চতুর্থ কোয়ার্টারে তিন গোল করে ভারত। বাকি গোলটি হয়েছে তৃতীয় কোয়ার্টারে।

গোল চারটি করেন সাদবির সিং, হারমানপ্রিত সিং, ললিত উপাদ্যায় ও জুরজাত সিং।
দিনভর বৃষ্টি এতটাই হয়েছে যে, মাঠে ঢোকার পথটি পুরোপুরি ছিল পানির নিচে। সে পানি টার্ফের একাংশও ডুবিয়ে দিয়েছিল। দুপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পানি সরানোর কাজ করেছেন। টার্ফের এক পাশে পানি জমে যাওয়ায় গতকাল নির্ধারিত দুটি ম্যাচই পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল। দুই আম্পায়ার ও টুর্নামেন্ট ডাইরেক্টর একাধিকবার মাঠ পরিদর্শন করে ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচের সময় নির্ধারণ করেছিলেন সন্ধ্যা ৭টা। তারও পনের মিনিট পরে শুরু হয় চীর প্রতিদ্বন্দ্বী এই দুই দলের লড়াই। পরিসংখ্যানে এগিয়ে থাকলেও শেষ ছয় লড়াইয়ের ছয়টিতে জিতেছে ভারত। ঢাকায় এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বের ম্যাচেও পাকিস্তানকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল হারমানপ্রিত সিং’রা। সুপার ফোরের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল ভারত। দুই ম্যাচে তাদের ঝুলিতে ছিল চার পয়েন্ট। সমান ম্যাচে এক পয়েন্ট নিয়ে খেলতে নামে পাকিস্তান। ফাইনাল খেলতে হলে জিততে হবে পাকিস্তান। এমন চাপ নিয়ে শুরুটা একেবারে মন্দ করেনি শুরুর তিন বারের চ্যাম্পিয়নরা। ফাইনালে উঠার এ লড়াইয়ে প্রথমার্ধে চারটি পেনাল্টি কর্নার আদায় করে পাকিস্তান। কিন্তু ভারতীয় গোলরক্ষক চিকটি আকাশের কল্যাণে গোল বঞ্চিত হয় তারা। ভারত দুটি পেনাল্টি কর্নার আদায় করলেও ম্যাচের প্রথমার্ধ ছিল গোলশূন্য। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই পাল্টে যায় ম্যাচের ধরন। পাকিস্তানের ডিফেন্ডারদের নিস্প্রভার সুযোগ নিয়ে ম্যাচের ৩৯ মিনিটে সংঘবদ্ধ একটি আক্রমণ থেকে সাদবির সিং গোল করে ভারতকে এগিয়ে দেন। ৫১ মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অধিনায়ক হারমানপ্রিত সিং। পরের মিনিটে ললিত উপাদ্যায়ের ফিল্ড গোলে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় গতবারের রানার্সআপরা। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে ভারতের হয়ে চতুর্থ গোলটি করেন গুরজাত সিং। আজ বিকাল সাড়ে পাঁচটায় মালয়েশিয়া-দক্ষিণ কোরিয়ার জয়ী দলের বিপক্ষে ফাইনাল খেলবে ভারত।