পিএমএলএনের জন্য আরো বিপদ সংকেত

26

নতুন আরেক সঙ্কটে পড়তে যাচ্ছে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএলএন)। গত শুক্রবার দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রীত্ব হারান নওয়াজ শরীফ। এর ফলে আগামীকাল মঙ্গলবার ৪৫ দিনের জন্য অন্তর্বর্তী প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের জন্য পার্লামেন্ট অধিবেশন আহ্বান করেছেন প্রেসিডেন্ট মামনুন হোসেন। সেই নির্বাচনে পিএমএলএনের প্রার্থী শাহিদ খাকান আব্বাসী। তিনিই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তবে এক্ষেত্রেও বিপদ আসতে পারে পিএমএলএনের সামনে। কারণ, আব্বাসীর বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। বলা হচ্ছে, ২২০০০ কোটি রুপি দুর্নীতির অভিযোগে তার বিরুদ্ধে তদন্ত করবে জাতীয় জবাবদিহিতা বিষয়ক ব্যুরো (এনএবি)। বলা হয়েছে, তিনি তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) আমদানির চুক্তি করার ক্ষেত্রে এই দুর্নীতি করেছেন। ২০১৫ সালে এ অভিযোগে যে মামলা করেছে এনএবি তাতে তিনি মূল আসামী। এতে সন্দেহভাজন অন্যদের মধ্যে আছেন জ্বালানি বিষয়ক সচিব আবিদ সাঈদ, ইন্টার স্টেট গ্যাস সিস্টেমসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোবিন সাউলুত, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এনগ্রোসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এমরানুল হক, সুই সাউদার্ন গ্যাস কোম্পানির সাবেক মহাপরিচালক জুহাইর আহমেদ সিদ্দিকী। এনএবি’র ডকুমেন্ট অনুযায়ী, সরকারি ক্রয় বিষয়ক কর্তৃপক্ষের আইন ও আনুষঙ্গিক আইনকানুন লঙ্ঘন করে ২০১৩ সালে এলএনজি আমদানি ও বিতরণের কন্ট্রাক্ট দেয়া হয় ইলেনজি টারমিনালকে। এটি এনগ্রো’র একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। এ অভিযোগে ২০১৫ সালের ২৯ শে জুলাই এনএবি একটি মামলা করে। কিন্তু তা এখনও তদন্তের পর্যায়ে রয়েছে। এ বিষয়ে এনএবি’র চেয়ারম্যান কমর জামান চৌধুরী বলেছেন, তিনি এক্ষেত্রে একটি নতুক কৌশল চালু করেছেন। এর অধীনে সব কর্মকা- সম্পন্ন করতে ১০ মাস সময় লেগেছে। অর্থাৎ তদন্ত শেষ হয়ে গেছে। দৃশ্যত এখন নওয়াজ শরীফ পরিবারের মামলাগুলোর মতোই এই মামলাকে সামনে ঠেলে দিতে পারে এনএনবি। জ্বালানি বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ও পরিকল্পনা কমিশনের সাবেক সদস্য শাহিদ সাত্তারের অভিযোগের ভিত্তিতে এই মামলা নেয়া হয়েছে। এনএবির ডকুমেন্ট অনুযায়ী, এ মামলায় আব্বাসী সহ অন্য যাদের নাম আছে তাদেরকে এক্সিট কন্ট্রোল লিস্টে সেখানে এদের নাম যুক্ত করতে সুপারিশ পাঠিয়েছিল এনএনবি। একই সঙ্গে এর কার্যক্রমও শুরু করার কথা বলেছিল। এ বিষয়ে জমিয়তে উলেমা-ই ইসলাম প্রধান মাওলানা ফজলুর রেহমান বলেছেন, এনএবির এমন রেফারেন্সে আব্বাসী ভিত নন। যারা এমন অভিযোগ আনছেন তাদের লজ্জিত হওয়া উচিত।