ফেসবুক বান্ধবীকে ধর্ষণ ২ আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

38

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুুকে পরিচয় হওয়া বান্ধবীকে ডেকে নিয়ে রাজশাহী নগরীর গেস্ট হাউসে পালাক্রমে ধর্ষণের ঘটনায় দুই আসামির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহীর মূখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মো. জাহিদ হোসেন তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নগরীর শাহ্ মখদুম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন তুহিন জানান, তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া আসামি শাসমুল আলম বাদশা ও আবু ফায়েজ ওরফে নাহিদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতের ৫ দিনের রিমান্ড অবেদন করা হয়েছিল। আদালত আসামিদের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
শাহ মখদুম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান জানান, আসামি বাদশা ও নাহিদ বর্তমানে কারাগারে আটক রয়েছে। রিমান্ড মঞ্জুর হওয়ার পর পরই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানা হেফাজতে নিয়ে আসা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধরে গত ৩১ জুলাই চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাসিন্দা ও ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ সম্পন্ন করা ওই তরুণীকে ডেকে নগরীর নওদাপাড়ার গ্রিন গার্ডেন গেস্টহাউসে পালাক্রমে ধর্ষণ করা হয়। ঘটনার ওই রাতেই তরুণী শাহ মখদুম থানায় মামলা করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে পর দিন ভোরে দুজনকে গ্রেপ্তার করে।
ধর্ষণকারীরা হল ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্স (ইউআইটিএস) এর রাজশাহী শাখার সাবেক শিক্ষক সামশুল আলম বাদশা (৩৫) এবং রাজশাহীর গোরহাঙ্গা এলাকার ইজিটাচ কম্পিউটার দোকানের স্বত্ত্বাধীকারী আবু ফায়েজ নাহিদ (৩০)। এদের মধ্যে বাদশার বাড়ি রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার মচমইল গ্রামে। আর নাহিদের বাড়ি একই উপজেলার হাসনিপুর গ্রামে। তারা দুজনেই রাজশাহী শহরের বোয়ালিয়া থানার সাগরপাড়া এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।