বদনামটা ঘোচাতে চান রুবেল

29

টেস্টে রুবেল হোসেন চলে না- এমন একটা ধারনা তৈরি হয়ে আছে। টেস্টে উইকেট প্রতি রান তার একটু বেশিই। এ জন্য ২০০৯ সালে অভিষেকের পর ৭৭ ওয়ানডে খেলা এই পেসার টেস্ট খেলেছেন মাত্র ২৪টি। কমপক্ষে ১৫ উইকেট নেয়া বোলারদের মধ্যে রুবেলের বোলিং গড় টেস্ট ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে। সর্বশেষ গত বছর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে ছিলেন তিনি। তাই আশা ছিল দেশের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সুযোগ পাওয়ার। কিন্তু ইংল্যান্ডের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি থেকে ফেরার পথে বাধালেন অদ্ভুত এক কাণ্ড। শিকার হলেন ভূতুড়ে এক ইনজুরির। তার ভাষ্য মতে, হোটেলে দরজার সঙ্গে আঘাত পেয়েছেন। তবে সেই আঘাতের তীব্রতা এতটাই ছিল যে দেশে ফিরে তাকে যেতে হয়েছে অপারেশনের টেবিলে। তাই অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা মিশনে ঘোষিত ২৯ সদস্যের দলে থাকলেও কন্ডিশনিং ক্যাম্পে অংশ নিতে পারেননি সময়মতো। ১০ই জুলাই থেকে ফিটনেস ক্যাম্প শুরু হলেও রুবেল ১৬ দিন পর যোগ দেন। তবে প্রধান কোচ হাথরুসিংহের সঙ্গে স্কিল ট্রেনিংটা ভালোভাবেই শুরু করেছেন তিনি।
গতকাল স্কিল ট্রেনিং শেষে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে নিজের অবস্থা নিয়ে কথা বলেন তিনি। রুবেল বলেন, ‘এখন আমি পুরোপুরি সুস্থ। ফুল রান আপে বোলিং করেছি আজ। আগের দিন শর্ট রান আপে করেছিলাম, তবে ইনটেনসিটি হাই ছিল। আজ পুরো রান আপে করলাম। কোনো ধরনের ব্যথা অনুভব করিনি।’
সুস্থ থাকলে সামনে টেস্টে তার সুযোগ কতটা? টেস্টে পারফরম্যান্সের কারণেই রুবেলকে একটু উপেক্ষিতই থাকতে হয়। ৪১ ইনিংসে ৭৭.৯৩ গড়ে তিনি উইকেট পেয়েছেন মাত্র ৩৩টি। ম্যাচে সেরা নৈপুণ্য ২১০ রান খরচ করে পাঁচ উইকেট। অপরদিকে ৭৭ ওয়ানডেতে তার ৩৫.১৯ গড়ে শিকার ৯৩ উইকেট। এখন টেস্টে বোলিংয়ে উন্নতি করতে মরিয়া ২৭ বছর বয়সী খুলনার বাগেরহাটের এ ক্রিকেটার।
ক্যাম্পে শুরু থেকে উপস্থিত না থাকায় বেশ ক্ষতির মুখেই পড়েছেন রুবেল। ফিটনেস নিয়ে আরেকটু ঘাম ঝরানোর সুযোগ তো ছিলই, ওই সময় পাশাপাশি পেস বোলারদের নিয়ে আলাদা কাজ করেছেন বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ। রুবেল ছিলেন না সে সময়। তবে তার আশা, ঘাটতিটুকু পুষিয়ে নিতে পারবেন সামনের ক’দিনে। গতকাল তিনি বলেন, ‘এখনও অনেক দিন সময় আছে। যেহেতু কয়েকটা বোলিং সেশন মিস করেছি, সুযোগটা কাজে লাগানোর চেষ্টা করবো। যে ক’টা দিন অনুশীলন আছে, তার সঙ্গে মনোযোগ দিয়ে কাজ করার চেষ্টা করবো।’
টেস্টে রুবেল নিজের বোলিং উন্নতিতে এখন একমাত্র ভরসা দেখছেন ওয়ালশকে। রুবেলের চাওয়া, ওয়ালশকে সঙ্গে নিয়ে টেস্টে তার বোলিং চলে না সেই বদনাম মিটিয়ে দেয়ার। তিনি বলেন, ‘টেস্ট ক্রিকেটে তার (ওয়ালশ) কাছ থেকে অনেক শেখার আছে। কারণ তার টেস্ট রেকর্ড অনেক ভালো। কিভাবে লাইন-লেংথে একটানা বোলিং করা যায়, কিভাবে উইকেট বের করতে হবে বড় বড় দলের সঙ্গে, এটা নিয়ে কাজ করবো।’
অন্যদিকে টেস্টে বোলার হিসেবে তার প্রতিযোগীও কম নয়। বিশেষ করে কামরুল ইসলাম রাব্বি। তিনি কেবল বল হাতেই নয়, ব্যাট হাতেও দলকে সাপোর্ট দিতে পারেন। তাই রুবেলকে কিছুটা ব্যাটিংও করে দেখাতে হবে টেস্টে। তবে এর মধ্যে তার জন্য সুখবরও আছে। ব্যাটিং কোচও আছেন এখন তাদের জন্য। প্রাথমিক ভাবে এক মাসের জন্য ব্যাটিং পরামর্শক হয়ে আসা মার্ক ও’নিলের মূল কাজ লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের নিয়ে কাজ করা। রুবেলও মুখিয়ে আছেন ব্যাটিং ঝালাই করে নিতে। তিনি বলেন, ‘আমার সঙ্গে যদি একজন সেট ব্যাটসম্যান থাকে, তাকে সাপোর্ট করার জন্য কী করা উচিত, এটা নিয়ে কথা বলবো। কোন পরিস্থিতিতে কী করতে হবে, এই ধরনের বাড়তি কিছু পরামর্শ নেয়ার চেষ্টা করবো।’