বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ শুরু রোববার “কঠোরতার আভাস বাফুফের”

33

দু’দিন পিছিয়ে আগামী রোববার শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ। ১০টি দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে চ্যাম্পিয়নশিপ লীগের পঞ্চম আসর। চ্যাম্পিয়ন কিংবা রানার্সআপ হয়ে প্রিমিয়ার লীগে না খেললে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা থাকবে নেয়া হবে ওই ক্লাবের বিরুদ্ধে। গতকাল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে (বাফুফে) এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী। এ সময় বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ, সদস্য শওকত আলী খান জাহাঙ্গীর, ইলিয়াস হোসেন, ফজলুর রহমান বাবুল, জাকির হোসেন চৌধুরী, পৃষ্ঠপোষক মার্সেলের এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার, প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের ডিএমডি শামসুদ্দিন চৌধুরী, ট্রিজার সিকিউরিটিজের পরিচালক ইশমাম সালাম এবং দশ ক্লাবের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
গেল বছর চ্যাম্পিয়নশিপ লীগে শিরোপা জিতে প্রিমিয়ারে উঠেছিল ফকিরেরপুল ইয়ংমেন্স ক্লাব। কিন্তু আর্থিক দৈন্যতা দেখিয়ে তারা খেলেনি দেশের সর্বোচ্চ আসরে। যদিও আগে একই কারণে পাঁচ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছিল কক্সবাজারের দল কক্সসিটি ক্লাবকে। কিন্তু ফকিরেরপুলের ব্যাপারে তেমন কোনো শাস্তি হয়নি। যথারীতি এবার তারা খেলছে চ্যাম্পিয়নশিপে। তবে এবার সেরকম ঘটলে ওই ক্লাবকে শাস্তির আওতায় আনা হবে বলে জানানো সালাম মুর্শেদী। এবারের লীগে খেলা ক্লাবগুলো হলো- ফেনী সকার ক্লাব, উত্তর বারিধারা ক্লাব, ফকিরেরপুল ইয়ংমেন্স ক্লাব, অগ্রণী ব্যাংক স্পোর্টস ক্লাব, পুলিশ ফুটবল ক্লাব, মতিঝিল টিঅ্যান্ডটি ক্লাব, ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব, কাওরানবাজার প্রগতি সংঘ, বসুন্ধরা কিংস ও নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব। তবে ফেনী সকার ও নোফেল ক্লাব দুটিকে সাধারণত ঢাকার বাইরের দল ধরা হয়। কিন্তু এই ক্লাবগুলোর অবনমন হলে কোথায় খেলবে তার কোনো সুনির্দিষ্ট নীতিমালা নেই। এ বিষয়ে বাফুফের এই সিনিয়র সহসভাপতি বলেন, ‘যে ক্লাবের সৃষ্টি যেখানে, অবনমনের পর সেখানেই ফিরে যাবে।’ প্রথম লেগের পর দীর্ঘ সময় বিরতি থাকবে। আর ওই সময়েই এই ক্লাবগুলো নিয়ে ‘চ্যাম্পিয়নশিপ কাপ’ নামে একটি টুর্নামেন্টও নাকি হবে। অংশগ্রহণ মানি হিসেবে প্রত্যেক ক্লাব পাঁচ লাখ টাকা করে পাবে। এছাড়া চ্যাম্পিয়ন দল পাঁচ লাখ এবং রানার্সআপ দল তিন লাখ টাকা প্রাইজমানি পাবে। চ্যাম্পিয়নশিপ লীগের সর্বোচ্চ পয়েন্টধারী দুটি দল প্রিমিয়ারে খেলার সুযোগ পাবে এবং সর্বনিম্ন পয়েন্টধারী একটি ক্লাব অবনমনে যাবে। খেলা হবে কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম এবং রংপুরে। যদিও এখন পর্যন্ত রংপুরের ভেন্যু নির্ধারণ হয়নি।