‘বাংলার নারী সমাজ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে’

31

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন- প্রতিদিন সংবাদপত্র জুড়ে ধর্ষণ, হত্যা, গুম ও রাজনৈতিক অস্থিরতার সংবাদ থাকে। সভ্যজাতি হিসেবে এসব দেখে আমাদের বড় অসহায় মনে হয়। বাংলার নারী সমাজ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। ঘরে বাইরে কোথাও তারা সুরক্ষিত নয় এখন। জাতীয় পার্টির শাসনামলে নারী নির্যাতন বিরোধী আইনের যথাযথ প্রয়োগের কারণে সে সময় দেশে নারীরা স্বাধীনভাবে চলতে পারত। আমাদের সরকারের সময় নারীর মর্যাদা, সম্মান রক্ষা ও ক্ষমতায়নে সংসদের নারী প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা হয়েছিল। চালের বাজারে চলছে এখন চরম নৈরাজ্য। সরকার চাল আমদানি করেও মূল্য কমাতে পারছে না শুধু অসাধু সিন্ডিকেটের কারণে। আগামী নির্বাচনে সম্মিলিত জাতীয় জোটের নেতৃত্বে আমরা ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবো। চট্টগ্রামের ১৫টি সংসদীয় আসনে যাচাই-বাছাই করে যোগ্য প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হবে। ৯০ পরবর্তী সরকারগুলোর ধারাবাহিক ব্যর্থতার কারণে দেশের সচেতন মানুষ জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়। তাই জনতার প্রত্যাশা পূরণে এখন থেকে তৃণমূলে সংগঠন শক্তিশালী করতে হবে। গতকাল সকাল ১১টায় ১ দিনের ব্যক্তিগত সফর শেষে চট্টগ্রাম ত্যাগের প্রাক্কালে আন্তর্জাতিক শাহ আমানত বিমানবন্দরে উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য পানি সম্পদমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি, সাবেক মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু এমপি, কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মোরশেদ মুরাদ ইব্রাহিম, চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মাহজাবীন মোরশেদ এমপি, কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান সভাপতি শামসুল আলম মাস্টার, নগর জাপার সিনিয়র সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শ্রী তপন চক্রবর্ত্তী, উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক শফিক উল আলম চৌধুরী, নগর জাপার সহ-সভাপতি আনিসুল ইসলাম চৌধুরী, উত্তর জেলা জাপা সহ-সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন আকবর, নগর জাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন জ্যাকি ও সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা প্রমুখ।