বার্সেলোনায় নেইমারের জায়গা নেবেন কে?

58

রেকর্ডগড়া ট্রান্সফারে সদ্য বার্সেলোনা থেকে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে পাড়ি দিলেন ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার নেইমার। প্রথমবারের মতো কোনো ফুটবলারের ট্রান্সফারের অঙ্কটা ১০০ মিলিয়ন পাউন্ডের কোঠা ছাড়িয়ে যেতে দেখা গেল। আর তাও অঙ্কটা প্রায় ২০০ মিলিয়ন পাউন্ডের কাছাকাছি। বার্সেলোনায় গত তিন মৌসুম উড়ন্ত ফর্মই দেখিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার। আর প্যারিসে যাওয়ার প্রাক্কালেও বার্সেলোনার ব্যাংক একাউন্ট ভারি রেখে গেলেন তিনি। এতে দলে নেইমারের বিকল্প খুঁজতে অর্থের সংকটের সম্ভাবনা নেই বার্সেলোনার। তবে বার্সেলোনা দলে নেইমারের জায়গা নেবেন কে? সম্ভাব্য ৭ খেলোয়াড়ের দিকে দেখা যাক এক নজরে।

ফিলিপ্পে কুটিনহো (ব্রাজিল, লিভারপুর)
ব্রাজিলিয়ান এ প্লে মেকারের জন্য বার্সেলোনার দেয়া ৭২ মিলিয়ন পাউন্ডের প্রস্তাব ইতিমধ্যে ফিরিয়ে দিয়েছে লিভারপুল। বরং লিভারপুলের জার্মান কোচ বার্সেলোনার উদ্দেশ্যে গলা ছাড়েন, ‘গুরুত্বপূর্ণ এক বার্তা দিতে চাই যে, খেলোয়াড় বিক্রি করে দেয়ার মতো ক্লাব নই আমরা। আমরা এক যোগে কাজ করতে চাই, সামনে এগিয়ে যেতে চাই। গেল জানুয়ারিতে সপ্তাহে ১৫০০০০ পাউন্ডের বেতনে লিভারপুলের সঙ্গে পাঁচ বছরের চুক্তিতে সই করেন কুটিনহো। গত মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে ১৩ গোল করেন ‘দ্য ব্রেইন’ খ্যাত এ ফুটবলার। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগের নিরিখে ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার হিসেবে কেবল নেইমারের রয়েছে ১৩ গোলের কৃতিত্ব। লিভারপুলে ‘নাম্বার ৮’ পজিশনেই খেলতে দেখা যায় তাকে। বার্সেলোনায় এমন জায়গাটা আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার। এক্ষেত্রে কুটিনহো বার্সেলোনায় নিতে পারেন নেইমারের জায়গাটা।

পাউলো দিবালা (আর্জেন্টিনা, জুভেন্টাস)
জুভেন্টাসের আর্জেন্টাইন এ ফরোয়ার্ডকে নিয়ে হতাশার স্মৃতি রয়েছে বার্সার। সর্বশেষ ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বার্সেলোনার বিদায়ে কাতালানদের জালে জোড়া গোল ঠেলেন পাউলো দিবালা। প্রথম লেগে ২২ মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করেন তিনি। শেষে জুভেন্টাস সেমিফাইনালে পৌঁছে ৩-০ এগ্রিগেট নিয়ে। জুভেন্টাসকে সর্বশেষ ইতালিয়ান সিরি আ’ ফুটবল লীগ শিরোপা এনে দেয়ার পথে দিবালা করেন ১১ গোল। এতে তার অ্যাসিস্ট ছিল ৭টি। এবারের দল বদলে জুভেন্টাস থেকে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই পাড়ি দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার দানি আলভেজ। আর সম্প্রতি আলভেজ বলেন, আমি তাকে (দিবালা) বলেছি কবে জানি না তবে একদিন নিজের আরো উন্নতির জন্য তোমাকে জুভেন্টাস ছাড়তে হবে। মাঠের ডান দিকে অনেকটা মেসির পজিশনে খেলতে দেখা যায় দিবালাকে। তবে এক্ষেত্রে লুইস সুয়ারেজের নিচে ‘নাম্বার ১০’ পজিশনে খেলাতে পারেন বার্সেলোনার নতুন কোচ আরনেস্তো ভালভার্দে।

উসমান দেম্বেলে (ফ্রান্স, বরুশিয়া ডর্টমুন্ড)
‘একদিন বার্সেলোনায় খেলবো আমি’- গত মৌসুমে ফরাসি দল রেন থেকে জার্মানির বরুশিয়া ডর্টমুন্ডে পাড়ি দেয়ার আগে নিজের এমন অভিলাষের কথা জানান উসমান দেম্বেলে। গত মৌসুম বুন্দেসলিগায় বল পায়ে সবচেয়ে বেশি ড্রিবলের (১০৩) রেকর্ডটা তরুণ এ ফরাসি স্ট্রাইকারের। আসরে তার অ্যাসিস্ট ছিল দ্বিতীয় সর্বাধিক ১২টি। বুন্দেসলিগায় অভিষেক মৌসুমে ২০ বছর বয়সী উসমান নিজে করেন ছয় গোল। মেসির মতো মাঠের ডানপ্রান্তে খেলতে দেখা গেলেও দুই পায়েই সমান দক্ষ উসমান দেম্বেলে। এক্ষেত্রে বার্সেলোনায় উইংগার হিসেবে খেলার সুযোগ থাকবে তার।
আন্তোইন গ্রিজম্যান (ফ্রান্স, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ)
ফরাসি ক্লাব অলিম্পিক লিঁওর স্ট্রাইকার আলেকজান্ডার ল্যাকাজেতের দিকে নজর ছিল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের। তবে নিজেদের রেকর্ড ৫২.৭ মিলিয়ন পাউন্ডের ট্রান্সফারে এ ফরাসি স্ট্রাইকারকে দলে ভেড়ায় আর্সেনাল। এতে অপর ফরাসি ফরোয়ার্ড আন্তোইন গ্রিজম্যানের ওপর নির্ভরতা বাড়ে অ্যাটলেটিকোর। গত মৌসুম স্প্যানিশ লা লিগায় ১৬ গোল করেন গ্রিজম্যান। যদিও আগের দুই মৌসুম তিনি দেখান ২২ গোলের কৃতিত্ব। লা লিগায় গত দুই মৌসুমে প্রতিপক্ষ ডি বক্সের বাইরে থেকে ১০ গোল আদায় করেন গ্রিজম্যান। কেবল মেসির রয়েছে এমন ১৫ গোল। ডানপ্রান্ত থেকে ভেতরে ঢুকে বাঁ-পায়ে শট নেয়াটা পছন্দ স্ট্রাইকার গ্রিজম্যানের। বার্সেলোনায় গত মৌসুম দলের মূল স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ করেন ২৯ গোল। তবে নিষেধাজ্ঞার কারণে আগামী গ্রীষ্মের আগে খেলোয়াড় কেনাবেচা করতে পারবে না অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। এর আগে এমন ঘটনায় তুর্কি ফুটবলার আরদা তুরানকে কিনে ৬ মাস বসিয়ে রাখে বার্সেলোনা।

অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া (আর্জেন্টিনা, প্যারিস সেইন্ট জার্মেই)
নেইমারের আগমনে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই একাদশে জায়গা ছেড়ে দিতে হতে পারে আর্জেন্টাইন উইংগার অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া অথবা জার্মান তারকা জুলিয়ান ড্রাক্সলারকে। তবে দুই উইং দিয়েই আক্রমণে দক্ষ ডি মারিয়া সমান উপযোগী ৪-২-৩-১ এবং ৪-৩-৩ পদ্ধতির ফুটবলে। গত মৌসুম ফরাসি লীগ ওয়ান আসরে সবচেয়ে বেশি পরিষ্কার গোলের সুযোগ (২১টি) তৈরি করার রেকর্ড ডি মারিয়ার। ৭৭টি গুরুত্বপূর্ণ পাস নিয়ে এমন তালিকায় তার অবস্থান তৃতীয়। বার্সেলোনায় ডি মারিয়ার উপস্থিতিতে সুযোগ বাড়তে পারে লুইস সুয়ারেজের। আর মেসির সঙ্গে জুটি বেঁধে জাতীয় দলে খেলার অভিজ্ঞতাও রয়েছে তার। ডি মারিয়া বার্সেলোনায় যোগ দিলে বিরক্ত হতে পারেন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের সমর্থকরাও। ২০১০ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত রিয়ালের জার্সি গায়ে খেলেন ডি মারিয়া।

ইডেন হ্যাজার্ড (বেলজিয়াম, চেলসি)
বেলজিয়ান এ প্লে মেকারকে নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদের আগ্রহের খবরটা নিয়মিত। তবে ক্যাম্প ন্যুতে নেইমারের যথার্থ রিপ্লেসমেন্ট হতে পারেন ইডেন হ্যাজার্ড। টানা দ্বিতীয় মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের বর্ষসেরা ফুটবলারের খেতাব কুড়াতে পারতেন তিনি। যদিও ইনজুরির কারণে আগামী সেপ্টেম্বরের আগে মাঠে ফেরা হচ্ছে না তার। গত মৌসুমে চেলসির হয়ে সর্বোচ্চ ১৬ গোল করেন ইডেন হ্যাজার্ড। দলে সবচেয়ে বেশি ড্রিবল ও সবচেয়ে বেশি সুযোগ তৈরি করেন তিনি। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়দের সবচেয়ে বেশিবার ফাউলের শিকারও হন তিনি। লেফট উইং দিয়ে বল পায়ে হ্যাজার্ডের খেলার ধরনটা নেইমারের মতোই। নেইমারের মতোই ডান পায়ে জোরালো শট নিতে সক্ষম তিনি।

কিলিয়ান এমবাপ্পে (ফ্রান্স, এএস মোনাকো)
ফরাসি এ তরুণ স্ট্রাইকারকে নিয়েও রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদের তোড়জোড়ের খবর। গত মৌসুমে ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগে টিনএজ ফুটবলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গোলে (২৩) অবদান কিলিয়ান এমবাপ্পের। ফরাসি দল এএস মোনাকোর হয়ে তিনি নিজে করেন ১৫ গোল ও তার আটটি অ্যাসিস্ট। বল পায়ে এমবাপ্পের খেলার ধরনটা বার্সেলোনার সাবেক ফরাসি ফরোয়ার্ড থিয়েরি অঁরির মতো। আর বাম প্রান্ত দিয়ে আক্রমণে সিদ্ধ এমবাপ্পে এবার বার্সেলোনায় হতে পারেন নেইমারের যথার্থ রিপ্লেসমেন্ট। স্প্যানিশ মিডিয়ার খবর, এমবাপ্পের জন্য মোনাকোর কাছে ১৬১ মিলিয়ন পাউন্ডের প্রস্তাব রেখেছে রিয়াল মাদ্রিদ। তবে বর্তমানে বার্সেলোনার আর্থিক সামর্থ্যটাও স্পষ্ট।