বিদেশেও দারুণ কিছুর আশায় মুশফিক

28

সোমবার দক্ষিণ আফ্রিকায় পৌঁছে অনুশীলন শুরু করে বাংলাদেশ দল। গতকালও দুপুরে বেনোনির সাহারা উইলোমোর পার্কে অনুশীলন করেন মুশফিকরা। সফরে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ দল। তার আগে অনুশীলনেও ছিল কন্ডিশনের সঙ্গে দলের মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা। আর দেশের বাইরেও দারুণ কিছু করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ দল। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গতকাল প্রথমবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন টাইগার অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। মুশফিককে শুরুতে অভিনন্দন জানান প্রোটিয়া সংবাদকর্মীরা। এই সফর থেকে বাংলাদেশের কী প্রত্যাশা? এমন প্রশ্নে মুশফিক বলেন, ‘আপনারা জানেন বাংলাদেশ শেষ কয়েক বছর ভালো ক্রিকেট খেলছে। যখন আমরা ঘরে খেলি তখন আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেক থাকে এমনকি আমরা অনেক ধারাবাহিকও। কিছুদিন আগেই আমরা অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তাদের কন্ডিশনে খেলাটা সহজ হবে না। তবে এটা আমাদের পরবর্তী ধাপ। আমরা বিদেশের মাটিতেও ভালো করতে চাই। এটাই এখন আমাদের চ্যালেঞ্জ। এ লক্ষ্য আমরা পূরণ করতে চাই আমরা।
আজ তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামছে বাংলাদেশ দল। মূল লড়াইয়ে নামার আগে প্রয়োজনীয় রশদটা এ ম্যাচ থেকেই নিতে চান মুশফিক। কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ারও বড় সুযোগ এই প্রস্তুতি ম্যাচ। মুশফিক বলেন, ‘আমরা দু’দিন অনুশীলন করেছি। টেস্টের আগে আমাদের হাতে কিছু সময় আছে। তবে আজ আমাদের প্রস্তুতি ম্যাচ। আশা করছি সেখানে আমরা ভালো কিছু করতে পারবো এবং আমরা আত্মবিশ্বাস অর্জন করতে পারবো।’ ঘরের মাঠে সর্বশেষ চারটি সিরিজই ড্র করেছে বাংলাদেশ। ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজে বৃষ্টির ভূমিকা থাকলেও ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষে ১টি করে ম্যাচ জিতেই সিরিজ ড্র করে মুশফিক বাহিনী। যে কোনো দলের জন্যই ঘরের মাঠে টাইগারদের হারানো যে কঠিন তা প্রমাণ করতে পেরেছেন মুশফিকরা। সর্বশেষ ২০০৮-০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর করেছিল বাংলাদেশ। সে দলের মাত্র ৩ জন খেলোয়াড় আছেন বর্তমান দলটিতে। অধিনায়ক মুশফিক ছাড়া তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েসের অভিজ্ঞতা আছে প্রোটিয়া মাটিতে খেলার। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার কঠিন কন্ডিশনে তরুণ ও অনভিজ্ঞ দল নিয়ে দারুণ আশাবাদী মুশফিক। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় এটা আমাদের জন্য দারুণ সুযোগ। কারণ আমাদের দলে বেশ কিছু তরুণ খেলোয়াড় এসেছে যারা এই কন্ডিশনে খেলে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবে। এটা আমাদের জন্য দারুণ একটি সিরিজ হবে।’
মূলত টেস্ট ক্রিকেটের অন্যতম শক্তিশালী দল ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দারুণ আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ। অপরদিকে ক’দিন আগেই ইংল্যান্ড থেকে ৩-১ ব্যবধানে হেরে দেশে ফিরেছে প্রোটিয়ারা। তার উপর দলের শীর্ষ দুই পেসার ডেইল স্টেইন ও ভারনন ফিল্যান্ডার রয়েছেন ইনজুরিতে। কোচ ওটিস গিবসনও সদ্যই যুক্ত হয়েছেন দলে। তাই কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে থাকবে দলটি। তবে এমনটা ভাবছেন না মুশফিক। কারণ তাদের কন্ডিশনে প্রোটিয়াদের হারানো কতটা কঠিন জানেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘তারা হয়তো ইংল্যান্ডে হেরেছে কিন্তু তারা খুবই বিপজ্জনক দল। তবে ঘরের মাঠে তাদের উইকেট কেমন আচরণ করবে, কন্ডিশন কেমন হবে আমরা কিছুই জানি না। তারা একজন নতুন কোচ পেয়েছে, তিনি হয়তো দক্ষিণ আফ্রিকায় নতুন কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনি অনেক পুরনো। আমার মনে হয় এটা খুব ভালো একটা সিরিজ হবে। এখানে আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে চাই।’

 

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা