বিমানে বালিকার উরুতে ডাক্তারের হাত, গ্রেপ্তার অবশেষে জামিনে মুক্ত

24

অপ্রাপ্ত বয়স্ক এক বালিকার সঙ্গে অশালীন আচরণের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ভারতের ২৮ বছর বয়সী একজন চিকিৎসককে। পরে জামিনে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। ওই চিকিৎসকের নাম বিজাকুমার কৃষ্ণাপ্পা। সিয়াটল থেকে বিমানে করে তিনি ইউনাইটেড ইয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে করে যাচ্ছিলেন নিওয়ার্ক লিবার্টি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে। ওয়াশিংটন পোস্টকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা পিটিআই রিপোর্ট করেছে এ নিয়ে। এতে বরা হয়েছে, ডা. বিজাকুমারের পাশের সিটেই বসা ছিল ওই বালিকা। ২৩ শে জুলাই একাই সে ভ্রমণ করছিল। ফ্লাইট যখন আকাশে তখন ঘুমিয়ে পড়ে সে। এ সময় আগন্তুকের মতো একটি হাত নড়াচড়া শুরু করে তার উরুতে। কিছুটা সময় এমন অনুভব করার পর ঘুম ভেঙে যায় ওই বালিকার। সঙ্গে সঙ্গে হাত সরিয়ে নেন ডা. বিজাকুমার। এরপর ওই বালিকা আবার ঘুমিয়ে পড়ে। আবারও একই ঘটনা। এবার ওই ডাক্তার তাকে যৌনতায় উত্তেজিত করার চেষ্টা করতে থাকে। এমন অবস্থায় ওই বালিকা বিষয়টি বিমানের ক্রুদের জানায়। তারা তাকে বিমানে আসন পাল্টে দেয়। বিমানটি নিওয়ার্ক লিবার্টি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে অবতরণ করার সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি পিতামাতাকে অবহিত করে ওই বালিকা। যখন সে পিতামাতাকে জানাচ্ছিল ততক্ষণে অভিযুক্ত চিকিৎসক বিমানবন্দর ছেড়ে গেছেন। এমন অবস্থায় বালিকার পরিবার মামলা করে ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের বিরুদ্ধে। অভিযোগে বলা হয়, তাদের মেয়েকে যৌন হয়রানি করা হলেও ডাক্তার বিজাকুমার কৃষ্ণাপ্পাকে গ্রেপ্তারে কর্তৃপক্ষ অবহেলা করেছে। এ মামলা তদন্তে নামে এফবিআই। তারা ফ্লাইট মেনিফেস্ট দেখে চিহ্নিত করে ডাক্তার বিজাকুমারকে। তার ছবি দেখানো হয় নির্যাতিত বালিকাকে। সে ছবি দেখে তাকে সনাক্ত করে। গ্রেপ্তার করা হয় বিজাকুমারকে। তার বিরুদ্ধে নিওয়ার্কে ফেডারেল কোর্টে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। অভিযোগে বলা হয়েছে, তিনি যৌন সম্পর্ক গড়তে ফৌজদারি অপরাধ করেছেন। তাকে গ্রেপ্তার করা হলেও পরে জামিনে ছাড়া হয়েছে। তবে গতিবিধি পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য তার দেহে লাগিয়ে দেয়া হয়েছে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস। নির্যাতিত বালিকার সঙ্গে তাকে কোনো রকম যোগাযোগ না করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওদিকে বিজাকুমারের পক্ষে নিয়োজিত আইনজীবী জন ইয়াউচ বলেছেন, তার মক্কেল আনীত অভিযোগ পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করেছেন। নিজেকে তিনি নির্দোষ দাবি করেছেন। উল্লেখ্য, ফেলোশিপের অধীনে যুক্তরাষ্ট্রে মেডিসিন নিয়ে পড়াশোনা করছেন ডাক্তার বিজাকুমার কৃষ্ণাপ্পা।