বোকো হারাম হামলায় নিহত অর্ধশতাধিক

24

নাইজেরিয়ার উত্তরা-পূর্বাঞ্চলে একটি তেল অনুসন্ধানী দলের ওপর সন্ত্রাসী দল বোকো হারামের অতর্কিত হামলায় ৫০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। এই সপ্তাহের শুরুর দিকে এই ঘটনা ঘটে। মৃতের সংখ্যা সময়ের সঙ্গে আরও বাড়তে পারে। বার্তা সংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে আল-জাজিরা। খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার নাইজেরিয়ার বর্নো রাজ্যের মাগুমেরি এলাকায় নাইজেরিয়ান ন্যাশনাল পেট্রোলিয়াম করপোরেশপনর (এনএনপিসি) বিশেষজ্ঞ দলের একটি গাড়ি বহরের ওপর এই হামলা চালানো হয়। গত কয়েক মাসের মধ্যে বোকা হারামের চালানো হামলাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী হামলা ছিল এটি। প্রথমদিকে ধরা হয়েছিল হামলাটি একটি অপহরণের প্রচেষ্টা। তবে ধীরে ধীরে সে ধারণা পাল্টায়। বর্নো রাজ্যের গ্রামীণ এলাকাটি ঘিরে রেখেছে সামরিক বাহিনীর সদস্যরা। আর সে কারণে এখনও নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না, এই অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলায় ঠিক কতজন প্রাণ হারিয়েছেন। বুধবার সেনাবাহিনী জানিয়েছিল, হামলায় ১০ জন মারা গেছেন। তবে হামলার পর ঘটনাস্থলে কর্মরত ছিল এমন এক সূত্র বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছে, ‘মৃতের সংখ্যা শুধু বাড়ছেই। এখন আমাদের কাছে ৫০ জনের বেশি (মৃত) আছে…এছাড়াও আরও দেহ আসছে। এটা নিশ্চিত যে, হামলাটি অপহরণের জন্য চালানো হয়নি। তারা (বোকো হারাম) স্রেফ হত্যা করার জন্য হামলা চালিয়েছে।’ নাইজেরিয়ান সেনাবাহিনীর সপ্তম ডিভিশনের সদর দপ্তরের এক মেডিকেল সূত্র বলেছে, ‘এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে ১৮ সেনার মৃতদেহ এসে পৌঁছেছে।’
এদিকে ইউনিভার্সিটি অব মাইদুগুরি টিচিং হসপিটালের এক সূত্র বলেছে, ‘আমাদের কাছে বর্তমানে ১৯ বেসামরিক নাগরিকের মৃতদেহ রয়েছে।’ বিবিসির এক খবরে বলা হয়, ২০০৯ সালে বোকো হারাম বিদ্রোহ ঘোষণার পর থেকে এখন পর্যন্ত তাদের বিদ্রোহে নিহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ হাজার মানুষ। অপহৃত হয়েছেন হাজার হাজার মানুষ।