মিয়ানমারে ২০ কোটি ডলার ঋণ স্থগিত করেছে বিশ্বব্যাংক

24

রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নৃশংসতা চালানোর কারণে মিয়ানমার সরকারকে বাজেট সহায়তা হিসেবে দেয়া ২০ কোটি ডলার ঋণ স্থগিত করেছে বিশ্বব্যাংক। মিয়ানমারের রাখাইন পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে ওয়াশিংটন থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক। ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, উন্নয়নে ঋণ পলিসি অনুমোদনের জন্য শর্তগুলো যাচাই করেছি। তারপর সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছি যে, এই ঋণ পেতে হলে আরো কার্যকর অগ্রগতি দেখাতে হবে। ঋণ স্থগিত করার ওই বিবৃতিতে বিশ্বব্যাংক আরো বলেছে, বৈষম্যহীন, সবাইকে নিয়ে সামাজিক প্রেক্ষাপট ও সবার জন্য অর্থনৈতিক সুবিধামুলক মৌলিক নীতিগুলোর প্রতি উৎসর্গিত প্রতিষ্ঠান বিশ্বব্যাংক। কিন্তু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সহিংসতা, ধ্বংসযজ্ঞ ও জোরপূর্ববক বাস্তুচ্যুত করায় আমরা গভীরভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করছি। বিশ্বব্যাংক আরো বলেছে, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা, বিদ্যুত, গ্রামীণ সড়ক, সব জাতিগোষ্ঠী, ধর্মের, বিশেষ করে রাখাইনের জাতিগোষ্ঠীকে সেবা দেয়ার জন্য উচ্চ মাত্রার প্রকল্পে বিনিয়োগ করার মাধ্যমে মিয়ানমারে সঙ্গে তারা কাজ করার বিষয়ে রিভিউ করেছে। উল্লেখ্য, মিয়ানমারে বাজেট সহায়তার জন্য ২০ কোটি ডলারের ঋণ চুক্তি গত ১৮ই আগস্ট মিয়ানমারের রাজস্ব বিভাগ, পরিকল্পনা ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক নওয়ে নওয়ে উইন ও মিয়ানমারে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর ইলেন গোল্ডস্টেন স্বাক্ষর করেন। তবে বিশ্বব্যাংকের ওই অর্থ স্থগিত করার মধ্য দিয়ে এটাই সেখানে প্রথমবার সরাসরি আর্থিক সহায়তা স্থগিত করলো বিশ্বব্যাংক। মিয়ানমারে দীর্ঘমেয়াদী শান্তি ও সমৃদ্ধির লক্ষ্যে অর্থনৈতিক পরিবর্তনকে ত্বরান্বিত করতে এই ঋণ দেয়ার কথা ছিল। ওদিকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক অন্যান্য সম্প্রদায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে বিশ্বব্যাংক। সমন্বিতভাবে তারা মিয়ানমার সরকারকে পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য জরুরি পদক্ষেপ নিতে উৎসাহিত করছে। বড় আকারে এবং সবার জন্য মানবিক সহায়তায় সাড়া দেয়ার ক্ষেত্রে সমর্থন দেয়া হচ্ছে। জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত দেশত্যাগী রোহিঙ্গাদের ও আভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুতদের নিজ ঘরে ফিরে যাওয়ার পথ তৈরি করার আহ্বান জানাচ্ছে। ওদিকে পালিয়ে আসা কমপক্ষে পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বিশ্বব্যাংকের সমর্থন চেয়েছে বাংলাদেশ। এতে সাড়া দিয়েছে তারা। বিশ্বব্যাংক বলেছে, সরকার ও যারা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে, বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের সহায়তা করার জন্য কর্মসুচি চালু করতে প্রস্তুত তারা।

 

 

 

 

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা