ম্যানইউকে হারিয়ে সুপার কাপ রিয়ালের

33

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ২-১ গোলে হারিয়ে ইউয়েফা সুপার কাপের শিরোপা জিতলো রিয়াল মাদ্রিদ। গত মৌসুমে ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপাজয়ী হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদ আর ইউরোপা লীগের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ম্যানইউ এই লড়াইয়ে মাঠে নামে। এতে ইউয়েফা সুপার কাপে টানা দুই শিরোপা জিতলো স্পেনের ক্লাব রিয়াল। গত মৌসুমে তারা স্পেনের আরেক ক্লাব সেভিয়াকে হারিয়ে শিরোপা জেতে। এতে ১৯৯০ সারের পর প্রথম দল হিসেবে সুপার কাপে টানা দুই শিরোপা জিতলো রিয়াল। গত মৌসুমে প্রথম দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে টানা দুই শিরোপা জেতে তারা। অন্যদিকে ম্যানইউ ১৯৯১ সুপার কাপে সর্বশেষ শিরোপা জেতে। এরপর ১৯৯৯, ২০০৮ ও সর্বশেষ ২০১৭ সালেও শিরোপা জিততে ব্যর্থ হলো তারা। সুপার কাপে রিয়ালের শিরোপা এখন চারটি। এর আগে তারা ২০০২ ও ২০১৪ সালে এই শিরোপা জেতে। ইউয়েফা সুপার কাপে সর্বোচ্চ পাঁচবার করে শিরোপা আছে স্পেনের বার্সেলোনা ও ইতালির এসি মিলানের।
মেসেডোনিয়ার মাঠে এদিন প্রথম একাদশে ছিলেন না রিয়াল মাদ্রিদের তারকা খেলোয়াড় ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবুও প্রথম থেকে লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ২৪ মিনিটে ক্যাসেমিরোর গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। প্রথমার্ধে ১-০ গোলে এগিয়ে শেষ করে স্পেনের ক্লাবটি। দ্বিতীয়ার্ধে ৫২ মিনিটে এবার ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ইসকো। তবে এর ১০ মিনিট বাদে হোসে মরিনহোর ম্যানইউর ব্যবধান কমান রোমেলু লুকাকু। এদিন দুই দলই একাধিক গোলের সুযোগ নষ্ট করেন। রিয়াল মাদ্রিদের ক্রাসবার শত্রু হয়েছে দুইবার। অন্যদিকে চলতি মৌসুমের শুরুতে এভারটন থেকে ম্যানইউতে ভেড়ানো লুকাকু এর আগে দারুণ একটি সুযোগ নষ্ট করেন। পল পগবার একটি শটরুখে দেন রিয়ালের গেলরক্ষক কেইলর নাভাস। সেটা গিয়ে পড়ে লুকাকুর সামনে। কিন্তু একেবারে কাছ থেকে সুযোগ পেয়েও বল পাঠিয়ে দেন ক্রসবারের ওপর দিয়ে। তবে শেষ পর্যন্ত তার কাছ থেকে ঠিক একই ধরনের শটে গোল আসে। এবার মাতিচের একটি শট ঠেকিয়ে দেন নাভাস। সেখান থেকে ফিরতি বলটি জালে জড়ান বেলজিয়ান স্ট্রাইকার লুকাকু।