যে তালিকায় ১২ নম্বরে এলগার

30

আগের দিন মাত্র তিন রানের জন্য অভিষেকে সেঞ্চুরি পাননি এইডেন মার্করাম। গতকাল একই ভুল করলেন তার পার্টনার ডিন এলগার। এলগারে ভুলটা আরো মারাত্মক। মোস্তাফিজুর রহমানের বাউন্সারে কিছুটা বিভ্রান্ত হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। পুল করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বল উঠে গেল মিডউইকেটে। মুুমিনুল হক এই সহজ সুযোগটা ছেড়ে দেয়ার কথা নয়। তালুবন্দি করে ফেললেন। ব্যক্তিগত ১৯৯ রানে আউট হয়ে গেলেন ডিন এলগার। টেস্ট ক্রিকেটে বারতম ক্রিকেটার হিসেবে এক রানের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি মিস করলেন এই ওপেনার। এই তালিকায় সর্বাধিক তিনজন আছেন অস্ট্রেলিয়ার। দুইজন করে আছেন পাকিস্তান, ভারত ও শ্রীলঙ্কার। একজন করে আছেন ইংল্যান্ড, জিম্বাবুয়ের।
এইডেন মার্করামের সঙ্গে ইনিংস ওপেন করতে নেমে ১৯৬ রানের জুটি গড়েছিলেন। এরপর হাশিম আমলার সঙ্গে গড়েন ২১৫ রানের জুটি। টেম্বা ভাবুমার সঙ্গে গড়লেন ৩৪ রানের জুটি। এরই মধ্যে নিজের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৪০ রানের ইনিংস টপকে গিয়েছিলেন দিনের শুরুতেই। এরপর শুধুই নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার পালা। চলে আসলেন ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির একেবারে দ্বারপ্রান্তে। কিন্তু নার্ভাস নাইনটিজে (১৯৯) আচ্ছন্ন হয়ে গেলেন ডিন এলগার। ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির একেবারে মুখে দাঁড়িয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললেন।
৩৮৭ বল খেলে যে ভুল করেননি, ৩৮৮তম বলে এসে সেই ভুলটাই করে বসলেন। ৪৪৫ রানে পড়লো দক্ষিণ আফ্রিকার তৃতীয় উইকেট। এলগারকে দিয়ে ১২ ব্যাটসম্যানের অভিজ্ঞতা হলো ১৯৯ রানে ফেরার। প্রথম এই তালিকায় নাম তুলেছিলেন মুদাসসর নজর। ১৯৮৪ সালের অক্টোবরে ফয়সালাবাদ টেস্টে ভারতের বিপক্ষে ১৯৯ রানে আউট হয়েছিলেন পাকিস্তানি ওপেনার। টেস্টে ১৯৯ রানে আউট হওয়া দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান আজহার উদ্দিন। ১৯৮৬ সালের ডিসেম্বরে কানপুরে এই তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছিল ভারতীয় সাবেক ব্যাটসম্যানের। অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারের বিষয়টি অবশ্য ভিন্ন। ২০০১ সালের সেপ্টেম্বরে হারারে টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ফলোঅনে পড়ে একাই লড়েছিলেন জিম্বাবুয়ের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। দল ৩৯১ রানে অলআউট। ফ্লাওয়ার অপরাজিত ১৯৯ রানে। তিনি সান্ত্বনা খুঁজে নিতে পারেন কুমার সাঙ্গাকারার কাছ থেকে। ২০১২ সালের জুনে পাকিস্তানের বিপক্ষে গল টেস্টে সাঙ্গাকারার রান যখন ১৯৩, স্কোরবোর্ড দেখাচ্ছিল ১৯৪। অফ স্পিনার সাঈদ আজমলকে ছক্কা মেরেই সাঙ্গাকারা মেতে উঠলেন উৎসবে হয়ে গেল ক্যারিয়ারের নবম ডাবল সেঞ্চুরি! ভুল ভাঙলো সাজঘর থেকে আসা সতীর্থদের ইঙ্গিতে। বলা হলো, আরও ১ রান করতে হবে। কিন্তু ১ রান আর হলো না। দুই বল পরেই অন্য পাশে নিভে গেল নুয়ান প্রদীপের উইকেট-প্রদীপ। স্টেডিয়ামের স্কোরবোর্ডের ভুলে তালগোল পাকিয়ে অপরাজিত রইলেন ১৯৯ রানে। টেস্ট ইতিহাসে ১৯৯ রানে অপরাজিত থাকা দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান এই লঙ্কান বাঁহাতি।
১৯৯ রানে আউটের তালিকা
নাম প্রতিপক্ষ ভেন্যু সাল
মুদাসসর নজর (পাকিস্তান) ভারত ফয়সালাবাদ ২৪শে অক্টোবর, ১৯৮৪
আজহারউদ্দিন (ভারত) শ্রীলঙ্কা কানপুর ১৭ই ডিসেম্বর ১৯৮৬
ম্যাথু ইলিয়ট (অস্ট্রেলিয়া) ইংল্যান্ড লীডস ২৫শে জুলাই ১৯৯৭
জয়সুরিয়া (শ্রীলঙ্কা) ভারত কলম্বো ১৩ই আগস্ট ১৯৯৭
স্টিভ ওয়া (অস্ট্রেলিয়া) ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্রিজটাউন ২৮শে মার্চ ১৯৯৯
অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার (জিম্বাবুয়ে) দক্ষিণ আফ্রিকা হারারে ১১ই সেপ্টেম্বর ২০০১
ইউনুস খান (পাকিস্তান) ভারত লাহোর ১৭ই জানুয়ারি ২০০৬
ইয়ান বেল (ইংল্যান্ড) দক্ষিণ আফ্রিকা লন্ডন ১৩ই জুলাই ২০০৮
কুমার সাঙ্গাকারা (শ্রীলঙ্কা) পাকিস্তান গল ২২শে জুন ২০১২
স্টিভেন স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া) ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিংস্টন ১১ই জুন ২০১৫
লোকেশ রাহুল (ভারত) ইংল্যান্ড চেন্নাই ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৬
এলগার (দক্ষিণ আফ্রিকা) বাংলাদেশ পচেফস্ট্রম ২৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৭