‘রাষ্ট্রদোহ’ তদন্তে মাদ্রিদের আদালতে কাতালান পুলিশ প্রধান

27

রাষ্ট্রদোহে সংশ্লিষ্টতা সন্দেহে মাদ্রিদের একটি আদালতে তলব করা হয়েছে কাতালান পুলিশ প্রধান জোসেফ লুইস ত্রাপেরো। তার নেতৃত্বাধীন কাতালানের স্বায়ত্বশাসিত পুলিশ বাহিনী মোসোস দি’এসকুয়াদ্রা ১লা অক্টোবরের স্বাধীনতা গণভোটের আগ দিয়ে প্রতিবাদকারীদের তোপের মুখে পড়া স্প্যানিশ জাতীয় পুলিশ বাহিনীকে রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে বলে অভিযোগ আনা হয়েছে। সন্দেহভাজন হিসেবে আরেক কাতালান পুলিশ কর্মকর্তা ও স্বাধীনতাপন্থী শীর্ষ দু’জন অ্যাক্টিভিস্টকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
স্বাধীনতা প্রশ্নে গত রোববার হওয়া কাতালান গণভোটকে স্পেনের আইনে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।
রাষ্ট্রদোহের অভিযোগে সন্দেহভাজনদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে মাদ্রিদে স্পেনের জাতীয় ফৌজদারি আদালতে। স্পেনের শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্র এল পায়েস বলছে, মোসোসের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ফ্রাঙ্কো পরবর্তী গণতান্ত্রিক স্পেনে নজিরবিহীন ঘটনা।
স্প্যানিশ আইনে রাষ্ট্রদোহের সাজার বিধার রয়েছে সর্বোচ্চ ১৫ বছর কারাদ-। এটাকে রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্ত বা জাতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।
প্রসঙ্গত, দু’মাস আগেই আগস্টে বার্সেলোনায় হওয়া সন্ত্রাসী হামলার নেপথ্যে দায়ী জঙ্গি সেলকে দ্রুত দমনের জন্য ব্যপক প্রশংসিত হয় মোসোস বাহিনী।
এদিকে, কাতালান আঞ্চলিক সরকার বলছে, তারা কয়েক দিনের মধ্যেই তাদের পক্ষ থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিতে পারে। কাতালোনিয়ার সঙ্গে এই মুখোমুখি অবস্থায় পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করতে মন্ত্রীপরিষদের একটি বৈঠকে বসার কথা রয়েছে স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মালিয়ানো রাজয়ের।
রোববারের গণভোট আয়োজকরা বলছেন, এদিন ভোটার উপস্থিতি ছিল ৪২ শতাংশ। ভোটে অংশ নিয়েছিল ২২ লাখ মানুষ। তাদের বক্তব্য, ভোটারদের ৯০ শতাংশ স্বাধীনতার পক্ষে ভোট দিয়েছে। তবে, এখনও চুড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হয় নি। ভোটে অনিয়মের বেশ কিছু অভিযোগও শোনা গেছে। পুলিশ বাহিনী ভোটের ওপর স্প্যানিশ আদালতের নিষেধাজ্ঞা আরোপের চেষ্টা করলে ভোটকেন্দ্রগুলোতে সহিংসতার ঘটনা ঘটে। তারা ব্যালট বাক্স জব্দ আর ভোটারদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়ার চেষ্টা করে।

 

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা