লড়াই করেই জিতলো বাংলাদেশ

41

৩৬ বলে আর মাত্র ৩৪ রান চাই বাংলাদেশের। হাতে আছে এখনো ছয় উইকেট। মাহমুদুল্লাহ ৯৭ আর সাকিব ৯২ রানে। ১১১ বলে সেঞ্চুরি করা সাকিব ১১০ রান করে বোল্ড হন। এরপর মাহমুদুল্লাহ ১০২ রানে অপরাজিত থাকেন। সাকিবের এটি সপ্তম শতক আর মাহমুদুল্লাহ’র
অসাধারণ জুটি গড়ে বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়ে তোলেন সাকিব-মাহমুদুল্লাহ জুটি। দুজনেই এগুচ্ছেন শতরানের দিকে। কিউই শিবিরে হতাশার ছায়া। ১১ ওভারে ৭৬ রান চাই বাংলাদেশের।
সাকিব -মাহমুদুল্লাহ’র প্রতিরোধ
মাত্র ৩৪ রানে চার উইকেট হারানোর পর বাংলাদেশ বিপর্যয় সামাল দিয়ে এগিয়ে চলেছে। সাকিব আল হাসান ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ পঞ্চম উইকেট জুটিতে শতাধিক রান যোগ করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানই ফিফটি করেছেন। যারা ভেবেছিলেন বাংলাদেশ ১০০ করতে পারবে কিনা তারা খানিকটা হতাশই হয়েছেন। ১০৭ বলে ১০০ রান করেন সাকিব-মাহমুদ জুটি। সাকিব ৬২ বলে করেন তার ৩৫তম ফিফটি। আর ৫৮ বলে ফিফটি করেন মাহমুদুল্লাহ। ৩১ ওভার শেষে বাংলাদেশ ১৪৩/৪।
১৫তম ওভারে ৫০ বাংলাদেশের
১৫তম ৫০ রান করলেও হতাশার কিছু ছিল না। কিন্তু এরই মধ্যে বাংলাদেশ যে চারজন ব্যাটসম্যান হারিয়ে ফেলেছে। চতুর্থ উইকেটে মুশফিক-সাকিব যখন ছিলেন তখনও বাংলাদেশের অনেকেই আশাবাদি ছিলেন। কিন্তু দলের ৩৩ রানের মাথায় অ্যাডাম মিলনের বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে গেলেন মুশফিক। ৩০তম জন্মদিনে মুশফিক করেন ১৪ রান। সাকিবের সঙ্গে মাহমুদুল্লাহ লড়াই করছেন বাংলাদেশ যদি সম্মানজনক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া যায়।
২৬৬ রানের মামুলি টার্গেট সামনে নিয়ে শুরুতেই বিপদে পড়েছে বাংলাদেশ। মাত্র ১২ রান যোগ করতেই তিন উইকেট হারিয়ে ফেলেছে তারা। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইনিংসের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলেই ফেরেন তামিম ইকবাল। এরপর তৃতীয় বলে ফেরেন সাব্বির রহমান। তামিম শূন্য রানে ফেরার পর সাব্বির ফেরেন ৮ রানে। আর ব্যক্তিগত ৩ রানে ফিরেছেন সৌম্য সরকার। তিন উইকেটই নিয়েছেন কিউই পেসার টিম সাউদি।
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আজ নিউজিল্যান্ড। কিউইদের মাত্র ২৬৫ রানে আটকে দিয়েছে বাংলাদেশের বোলাররা। কিন্তু মামুলি এই টার্গেট সামনে নিয়ে টিম সাউদির করা ইনিংসের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলেই এলবিডাব্লিউ হয়ে ফিরলেন তামিম।
নিউজিল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেন রস টেইলর। এছাড়া কেইন উইলিয়ামসন ৫৭ ও নেইল ব্রুম করেন ৩৬ রান। বাংলাদেশের হয়ে তাসকিন আহমেদ ৩ ও মোসাদ্দেক হোসেন ৩ উইকেট নিয়েছেন।
বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন ও মোস্তাফিজুর রহমান।

Advertisement
Print Friendly, PDF & Email
sadi