শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে পাহাড়ী ঢলে বিস্তির্ণ এলাকা প্লাবিত

67

জি.এইচ হান্নান : গত ২ দিনের প্রবল বর্ষন ও  সীমান্তের ওপার ভারতের মেঘালয় রাজ্য থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে মহারশি নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ ভেঙে ঝিনাইগাতী উপজেলার ৪ ইউনিয়নের অন্তত: ২০টি গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। রাতভর ভারি বর্ষণের কারণে সৃষ্ট  পাহাড়ি ঢলে ৩০ সেপ্টেম্বর শনিবার ভোরে ডুবে গেছে ঝিনাইগাতীর বাজার সহ বিভিন্ন অফিস আদালত ও দোকানপাঠ।

ঝিনাইগাতী সদর উপজেলা পরিষদ চত্বর ২ ফুট এবং বাজারে ৪ ফুট  পানিতে তলিয়ে গেছে।  উপজেলা সদরের প্রায় ২ কিলোমিটার  প্রধান সড়ক  ৩ ফুট পানির নীচে রয়েছে। তবে দুপুর পর্যন্ত  ঢলের পানি কিছুটা কমতে শুরু করেছে। শুক্রবার দিন থেকে শুরু করে রাতভর ভারি বর্ষণের কারণে এবং পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যার আকার ধারন করে এসব প্লাবিত এলাকা গুলো হচ্ছে ,মাটিয়া পাড়া,চতল,কালিনগর,সুরিহা,কালিনগর,বাগেরভিটা,হাসরীগাও,প্রভৃতি এলাকা। এসব এলাকার শত শত একর জমির রোপা আমন ধানের ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে এবং অনেক পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারহানা করিম পাহাড়ী ঢলে প্লাবিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। সাপ্তাহিক ছুটির কারনে ক্ষয় ক্ষতির পরিমান এখন পর্যন্ত নির্নয় করা যায়নি বলে উপজেলা প্রশাসন জনিয়েছেন ।