শেরপুরের ঝিনাইগাতী সীমান্তে আবারও বন্যহাতির মৃতদেহ উদ্ধার এ নিয়ে মৃত হাতির সংখ্যা দাড়ালো-৪

68

জি.এইচ হান্নান: শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী সীমান্তে আবারও একটি বন্যহাতির মৃত্যু হয়েছে। ১৮ অক্টোবর বুধবার সকালে ঝিনাইগাতী উপজেলার সীমান্তঘেষা নওকুচি এলাকার ভারত-বাংলাদেশ জিরো পয়েন্ট থেকে ওই বন্যহাতির মৃতদেহটি উদ্ধার করে রাংটিয়া ফরেষ্ট রেঞ্জের বন বিভাগ কর্তৃপক্ষ। উদ্ধার করা মৃত বন্য হাতিটির শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। গত ১৩ আগস্ট থেকে ৭ অক্টোবর পর্যন্ত শ্রীবরদী উপজেলার বালিজুড়ি ফরেষ্ট রেঞ্জ এলাকায় ৩ টি বন্য হাতির মৃত্যু এবং ঝিনাইগাতী রাংটিয়া রেঞ্জের ওই বন্য হাতির মৃত্যুসহ এ নিয়ে ২টি রেঞ্জে ২ মাসের ব্যবধানে মৃত বন্য হাতির সংখ্যা দাড়ালো- ৪।

বন বিভাগ সূত্রে গেছে, নওকুচি গ্রামের বাসিন্দা জনৈক স্বাধীন কোচ সকালে গরু চড়াতে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের জিরো পয়েন্টে গেলে সেখানে একটি বন্য হাতির মৃত দেহ পড়ে থাকতে  দেখে,  বন বিভাগে খবর দেয়। এসময় বন বিভাগের লোকজন ঘটনাস্থল গিয়ে বন্য হাতিটির মৃত দেহ পড়ে রয়েছে এবং তার শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্নও রয়েছে । এছাড়াও ওই হাতিটির কেটে যাওয়া অংশ দিয়ে পুঁজ বের হয়ে গন্ধ ছড়াচ্ছিল।

এব্যাপারে রাংটিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল্লা আল মামুন এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধারণা করা হচ্ছে বন্য হাতিটির বেশ কয়েকদিন আগেই দৃর্বৃত্তদের ধাড়ালো অস্ত্রের আঘাতে মৃত্যু হয়েছে এবং এমনটাই ধারণা করছেন তিনি। উল্লেখ্য গত ১৩ আগস্ট শ্রীবরদী উপজেলার বালিজুড়ি রেঞ্জের হালুয়াহাটি  গ্রামে ১টি বন্য হাতি, ৮ সেপ্টেম্বর একই রেঞ্জের নেপালি টিলায় ১টি মৃত মাদি হাতি, চলতি মাসের ৫ অক্টোবর রাংঙ্গাজান গ্রামে ১টি এবং সর্বশেষ ঝিনাইগাতীর নওকুচি গ্রামে ১টিসহ ৪টি বন্য হাতির মৃত্যু ঘটলো। পর পর বন্য হাতির এমন মৃত্যুতে উদ্দীগ্ন হয়ে পড়েছে সংশ্লিষ্ট বন বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ।