শেরপুরের পৃথক ৩টি ঘটনায় ৩ জন খুন, গ্রেপ্তার ৫

237

শেরপুর জেলা সদরসহ ৩টি উপজেলায় পৃথক ৩টি ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন, শেরপুরের বুড়িয়ার পাড়ের আক্কাছ আলী (৫৫), নালিতাবাড়ী উপজেলার বাতকুঁচি গ্রামের সাদির আলী (৫৬) ও শেরপুরের গাজীরখামারের সাইদ আলী (৩২)। ৩টি ঘটনাই ঘটে বৃহস্পতিবার রাতে। এসব ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে পুলিশ মোট ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।
বৃহস্পতিবার রাতে শেরপুর জেলা সদরের বুড়িয়ার পাড় এলাকায় ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সার ক্রয় বিক্রয় নিয়ে ঝগড়ার জের ধরে প্রতিপক্ষের আঘাতে নিহত হন আক্কাছ আলী (৫২) নামে এক ব্যক্তি।
শেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, ‘আক্কাছ আলী এক বছর আগে আনার মিয়া নামে একজনের কাছে একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা বিক্রি করে। কিন্তু বিক্রিত অটোরিক্সাটি বিক্রয়ের কোন লিখিত দেয় নাই। বৃহস্পতিবার রাতে আনার মিয়া কয়েকজন লোক নিয়ে অটোরিক্সা বিক্রয়ের লিখিত কাগজ দিতে আক্কাছ আলীর কাছে আসেন। এ সময় আক্কাছ আলী একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে থাকায় পরে লিখিত দিতে চায়। কিন্তু আনার আলী তাৎক্ষণিক কাগজ দাবী করায় উভয় পক্ষের তর্কাতর্কি হয়। এক পর্যায়ে আনার মিয়া লোকজন নিয়ে আক্কাছ আলীকে বেধরক মারপিট করে, ফলে ঘটনাস্থলেই আক্কাছ আলী মারা যান।’
এ ব্যাপারে শেরপুর থানায় মামলা একটি হত্যা মামলা হয়েছে এবং ঘটনার সাথে জড়িত আলামিন ও শহিদুল ইসলাম নামে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও ওসি জানান।
আরেক ঘটনায় নালিতাবাড়লি বাতকুঁচি গ্রামে ছেলের বউকে নিয়ে বেয়াইয়ের সাথে বচসায় জড়িয়ে নিহত হন সাবির আলী নামের এক ব্যক্তি।
নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফসিহুর রহমান জানান, ‘সাদির আলী ছেলে হোসেন আলীর সাথে পাশর্^বর্তী গ্রাম ডালুকোনার আবেদ আলীর মেয়ের বিয়ে হয়। সম্প্রতি আর্থিক দৈন্যতার কারণে সাবির আলী ছেলে তার বউকে নিয়ে ঢাকায় চলে যাবার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু মেয়ে ও জামাইয়ের ঢাকায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত মেনে নেয়নি আবেদ আলী। বৃহস্পতিবার রাতে আবেদ আলী বেয়াই বাড়ীতে যায় এবং বিষয়টি নিয়ে বেয়াই সাদির আলীর সাথে বচসার একপর্যায়ে মারপিট শুরু হয়। এক পর্যায়ে সাদির আলী অজ্ঞান হয়ে যায়। তাকে নালিতাবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’
ওসি জানান, এ ঘটনায় বেয়াই আবেদ আলী, তার স্ত্রী মাহফুজা বেগম ও কন্যা আছমাকে আটক করা হয়েছে।
অপর ঘটনায় শ্রীবরদী উপজেলার পোঁড়াগড় গ্রামে শ^শুরবাড়িতে এসে মারা গেছেন সাইদ (৩২) নামে এক যুবক। নিহত সাইদের বাড়ী শেরপুরের গাজীরখামারের কুরুলিয়ায়।
শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম জানান, ‘বৃহস্পতিবার রাতে শ^শুরবাড়িতে শ^শুরের কাছে পাওনা টাকা নিতে আসে সাইদ। জামাইয়ের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে জমি কিনেন সাইদের শ^শুর। এই পাওনা টাকা নিয়ে শ^শুরের সাথে ঝগড়া হয় সাইদের। পরে রাত সাড়ে দশটার দিকে শ^শুরবাড়ীর একটি ঘরে সাইদের লাশ পাওয়া যায়। শ^শুরপক্ষের দাবী সাইদ আত্মহত্যা করেছে। কিন্তু সাইদের স্বজনদের দাবী তাকে হত্যা করা হয়েছে।’
ওসি জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলেই জানা যাবে আসলে কি ঘটেছিল।

Advertisement
Print Friendly, PDF & Email
sadi