শেরপুরে কুকুরের কামড়ে ২২ জন আহত

73

জাহিদুল খান সৌরভ : শেরপুর পৌরসভার পূর্বশেরী, পশ্চিম শেরী ও কসবা মহল্লায় একই দিনে একটি পাগলা কুকুরের কামড়ে মোট ২২ জন শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এদের মধ্যে শিশু ও নারীও রয়েছেন। পশ্চিম শেরী মহল্লার প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ২৯ বৃহস্পতিবার এপ্রিল সকাল ৭ টার দিকে হঠাৎ এক কুকুর অস্বাভাবিক আচরণ করে এদিক সেদিক দৌড়াতে থাকে।

পথিমধ্যে ওই কুকুর পথচারীদের কামড়াতে শুরু করে। এরপর মহল্লাবাসী পাগলা কুকুরটিকে ধাওয়া করলে কসবা মহল্লার দিকে পালিয়ে যায়।

এদিকে পশ্চিম ও পূর্বশেরী পাড়া থেকে ধাওয়া খেয়ে কুকুরটি কসবা মহল্লায় প্রবেশ করলে এখানে নারী শিশুসহ বেশ কয়েকজনকে কামড়ে দিয়ে মারাত্মক আহত করে।

এবিষয়ে পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের কসবা ভাটিপাড়া মহল্লার বাসিন্দা মো. জব্বার আলী বলেন, আমার ছোট মেয়েটা তার এক আন্তীয়ের বাড়ি থেকে ফেরার পথে হঠাৎ ওই পাগলা কুকুরের সামনে পরে যায়। এরপর কুকুরটি তার পা হাতসহ বিভিন্ন জায়গায় কামড়ে দিয়ে মারাত্মক আহত ও রক্তাক্ত করে। মেয়েটার ডাক চিৎকারে আমরা ক’জন লাঠি সোটা নিয়ে এগিয়ে গেলে কুকুরটি আমাদেরকেও কামড়াতে আসে। তিনি আরও বলেন, এ পর্যন্ত কুকুরটি এই মহল্লার বেশ কয়েক জনকে কামড়িয়েছে।

শেরপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র কামাল হোসেন বলেন, প্রতিবারই পৌরসভার বেওয়ারিশ কুকুর গুলো ইনজেকশন পুশ করে নিধন করা হয়। আমরা মেয়র মহোদয়ের সাথে এ বিষয়টি নিয়ে কথা বলবো।

শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) মো. খাইরুল কবীর সুমন বলেন, এ পর্যন্ত মোট ২২ জন সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। কুকুরে যাদের কামড়িয়েছে তাদের সকলকে সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তবে যাদের অবস্থা একটু খারাপ তাদেরকে কয়েকদিন হাসপাতালে ভর্তি থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।