শেরপুরে হত্যা মামলার বাদীকে নির্যাতন ॥ গ্রেফতার ১

162

জিএইচ হান্নান : শেরপুর জেলার সদর উপজেলার চরমোচারিয়া ইউনিয়নের হরিণধরা হাজরাপাড়া গ্রামের চাঞ্চল্যকর রফিকুল হত্যা মামলার বাদী মোছা. ফুলেছা বেগম (৩৫) কে শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় ভাসুর মো. শহিদুল (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে ১৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার গ্রেফতার করেছে শেরপুর সদর থানার পুলিশ। ধৃত শহিদুল হরিণধরা হাজরাপাড়া গ্রামের বাজিত প্রমাণিকের ছেলে।

মামলা ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার হরিণধরা হাজরাপাড়া গ্রামের বাজিত প্রামাণিকের ছেলে মো. রফিকুল ইসলামকে ব্যবসায়িক দ্বন্দ্বের জের ধরে বিগত ১৭/০৪/২০২০ইং তারিখে তার সহোদর ভাই শহিদুল ও চাচাতো ভাইসহ অপরাপর সহযোগিরা হত্যা করে লাশ তরিঘরি করে দাফন করে। পরে এঘটনায় নিহত রফিকুল ইসলামের স্ত্রী ফুলেছা বেগম বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে আদালত মামলার বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে রফিকুল ইসলামের লাশ উত্তোলন করে ময়না তদন্তের নির্দেশ দেন। এদিকে বাদী মোছা. ফুলেছা বেগমকে মামলা প্রত্যাহার করার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। এতে তাদের কথায় রাজি না হওয়ায় এবং এসব ঘটনা ও তার কাছে যৌতুকের দাবী করে ফুলেছার ভাসুর শহিদুলসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা গত ৮ ফেব্রুয়ারি শারীরিক নির্যাতন করেন। পরে তাকে উদ্ধার করে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এব্যাপারে ফুলেছা বেগম সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ ভাসুর শহিদুলকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে।