শেরপুর জেলা কারাগারের হাজতি আসামী শামীমের জামিনে মুক্তি পেয়ে আর বাড়ি ফেরা হলো না

43

জি.এইচ.হান্নান: শেরপুর জেলা কারাগারে একটি হত্যা মামলায় হাজতি আসামী শামীম মিয়া (৩২) হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে ১২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ভোর রাতে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে মারা গেছে। আসামী শামীম ঝিনাইগাতী উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের সীমান্ত ঘেষা পূর্ব বাকাকুড়া গ্রামের জনৈক আবেদ আলী মন্ডলের ছেলে। শামীম বুধবার আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছিল, কিন্তু মৃত্যু তাকে আর বাড়ি ফিরতে দিল না।

কারা ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ঝিনাইগাতী উপজেলার পূর্ব বাকাকুড়া গ্রামের যুবক শামীম মিয়া একটি হত্যা মামলায় শেরপুর জেলা কারাগারে হাজতি আসামী থাকাবস্থায় বৃহস্পতিবার গভীর রাতে হঠাৎ তার বুকে ব্যাথা অনুভব করতে থাকে। পরে কারা কর্তৃপক্ষ রাতেই তাকে চিকিৎসার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ৩ টার দিকে মৃত্যু হয়। এদিকে কারা সূত্র এ প্রতিনিধিকে জানান, ঝিনাইগাতী থানায় বিগত ২০১৫ সালের ১৬ আগস্ট শামীমের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়। ঝিনাইগাতী থানার মামলা নং- ৮, জিআর নং-৪৬৩/১৭, এ মামলায় আসামী শামীম গত ২৫/০৯/২০১৭ইং তারিখ থেকে ১২ অক্টোবর পর্যন্ত ১৬ দিন জেলা কারাগারে হাজত বাস ছিল। এছাড়াও ওই মামলায় বুধবার আদালত থেকে তার জামিন হয়। এদিকে জামিন নামা সন্ধ্যায় জেলা কারাগারে পৌছায় সে আর জেলা কারগার থেকে বের হতে পারেনি। বৃহস্পতিবার সকালে শামীম জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। শামীম আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পেলেও মৃত্যুর হাত থেকে মুক্তি পেয়ে আর বাড়ি ফেরা হলো না। সদর থানার পুলিশ শামীমের মৃত দেহ উদ্ধার করে সূরতহাল রিপোর্ট তৈরী শেষে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। পুলিশ ও কারা কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়না তদন্ত শেষে শামীমের লাশ কারা কর্তৃপক্ষ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন।