শোকে স্তব্ধ যুক্তরাষ্ট্র

21

শোকে স্তব্ধ যুক্তরাষ্ট্র। স্টিফেন প্যাডোকের নৃশংস হামলায় কমপক্ষে ৫৯ জন মানুষ নিহত হওয়ার পর চারদিকে আর্তনাদ। প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প পতাকা অর্ধনমিত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। ওই হামলার পর আল কায়েদা দায় স্বীকার করলেও যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশ হামলাকারীর উদ্দেশ্য, তার সঙ্গে কাদের যোগসূত্র রয়েছে তা খুঁজে পেতে চেষ্টা করছে। ওদিকে স্টিফেন প্যাডোক লাস ভেগাসের মান্দালয় বে নামের হোটেলের যে কক্ষটিতে অবস্থান করছিল সেখান থেকে এবং তার বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রের মজুদ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন। রোববার রাতে লাস ভেগাসে একটি উন্মুক্ত কনসার্টে যোগ দিয়েছিল কমপক্ষে ২২ হাজার মানুষ। এর পাশেই মান্দালয় বে হোটেলের ৩২তম তলায় অবস্থান করছিল অবসরপ্রাপ্ত একাউন্টেন্ট স্টিফেন প্যাডোক। ওই কনসার্টে জেসন অলডেনের গান পরিবেশনের সময় অকস্মাৎ সেখান থেকে বৃষ্টির মতো গুলি ছোড়ে প্যাডোক। এতে সেখানে এক ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হয়। আনন্দ মুহূর্তেই এক শোক সাগরে পরিণত হয়। কনসার্ট স্থল নিহত ও আহতদের রক্তে ভেসে যায়। মানুষ দিশা হারিয়ে এলোপাতাড়ি ছোটা শুরু করে। সব মিলিয়ে এক ভীতিকর অবস্থার সৃষ্টি হয়। প্যাডোক হোটেলের যে রুমে অবস্থান করছিল সেখান থেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে ২৩ টি বন্দুক। এ ছাড়া তার বাড়ি নেভাদার মেস্কুইট থেকে উদ্ধার করেছে আরো ১৯টি অস্ত্র। এত বিপুল পরিমাণ অস্ত্র জমা করলেও আগে কেন তার বিরুদ্ধে কোনো ক্রিমিনাল অভিযোগ ছিল না তা নিয়ে প্রশ্ন সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়টি এড়িয়ে যাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। নেভাদার ক্লার্ক কাউন্টি শেরিফ জোসেফ লম্বারডো বলেছেন, কনসার্টে হামলা চালানোর পর পুলিশ যখন প্যাডোকের হোটেল রুমে অভিযান চালায় তখন সে পুলিশকে লক্ষ্য করে দরজার ভিতর দিয়ে গুলি করে। এক পর্যায়ে ওই দরজা ভেঙে ফেলে সোয়াত টিম। তারা দেখতে পায় ততক্ষণে আত্মহত্যা করেছে প্যাডোক।

 

 

 

 

সূত্র : মানবজমিন অনলাইন পত্রিকা