শ্রীবরদীতে জমি সহ ঘর পেলেন ২০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার

51

তাসলিম কবির বাবু : প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের (২য় পর্যায়) আওতায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপজেলাতে জমি সহ সেমিপাকা ঘর পেলেন ২০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। ২০ জুন রোববার সকালে গণভবন থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সারাদেশে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জমির কাগজপত্র ও ঘর হস্তান্তর কার্যক্রম শুভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন শেষে শ্রীবরদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিলুফা আক্তার শ্রীবরদী’র ২০ জন উপকারভোগীদের মাঝে জমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ ঘরের চাবি তুলে দেন।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে শ্রীবরদী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডিএম শহিদুল ইসলাম, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আতাউর রহমান, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহারুল ইসলাম লিটন, সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল্লাহ ছালেহ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী, উপকারভোগী সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

উপকারভোগী বালিজুরী গ্রামের ভিক্ষুক জেলেহা খাতুন, গড়খোলা গ্রামের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শান্ত মিয়া, খাড়ামোড়া গ্রামের লচিয়া সাংমা সহ অন্যান্যরা বলেন, আমাদের নিজের নামে জমি ও সেমিপাকা ঘর হবে তা কখনো ভাবিনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জমি ও ঘর দিয়েছেন। এতে আমরা অত্যন্ত খুশি। এসময় তারা প্রধানমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ট সকলের দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিলুফা আক্তার বলেন, ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীসহ অসহায় উপকারভোগীরা স্থান পেয়েছে। সরকারি নিদের্শনা মোতাবেক উপকারভোগীদের হাতে ঘরের চাবি সহ জমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তুলে দিতে পেরে ভালো লাগছে। তিনি আরো বলেন, আমরা অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে সকলের সমন্বয়ে যাচাই-বাছাই করে উপকারভোগী নির্বাচন করেছি। প্রথম পর্যায়ে শ্রীবরদীতে ৫০টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০টি ঘর বরাদ্দ ছিল।